সাকরাইন মানে কী, কীভাবে এলো

আগের সংবাদ

দাবানলে পুড়ছে আর্জেন্টিনা, জরুরি অবস্থা জারি

পরের সংবাদ

ইতিহাস গড়া হলো না ভারতের, সিরিজ জিতল দ. আফ্রিকা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৪, ২০২২ , ৬:২৩ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৪, ২০২২ , ৬:২৪ অপরাহ্ণ

সেঞ্চুরিয়ন দুর্গ জয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজ শুরু করেছিল ভারত। প্রথমবার দেশটির মাটিতে লঙ্গার ভার্সনে সিরিজ জয়ের হাতছানি ছিল তাদের সামনে। জোহানেসবার্গেই জিতে যেতে পারত তারা, কিন্তু ডিন এলগারের বীরোচিত ইনিংসে তাদের জয় ছিনিয়ে নেয় স্বাগতিকরা। কেপটাউনের নিউ ল্যান্ডসে জমল না ভারতের লড়াই, গড়া হলো না ইতিহাস। ৭ উইকেটে তাদের হারিয়ে ২-১ এ সিরিজ জিতল প্রোটিয়ারা।

তৃতীয় দিন শেষে জয়ের জন্য আর ১১১ রান দরকার ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেট হারিয়ে ঠিক ২১২ রানই করে স্বাগতিক দল। দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যেতে কিগান পিটারসেন ৮২, রসি ভ্যান ডার ডুসেন ৪১, টেম্বা বাভুমা ৩২ ও ডিন এলগার ৩০ রান করেন। ভারতের হয়ে একটি করে উইকেট পান জাসপ্রীত বুমরাহ, মোহাম্মদ শামি ও শার্দুল ঠাকুর।

এর আগে দ্বিতীয় ইনিংসে রিশভ পন্তের সেঞ্চুরিতে ১৯৮ রান করে ভারত। ওই ইনিংসে ভারতের হয়ে একাই লড়েন পন্ত। সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। ৫৮ বলে হাফসেঞ্চুরি করা পন্তের সেঞ্চুরি তুলে নিতে লেগেছে ১৩৩ বল। তার অপরাজিত ইনিংসে ছিল ৬টি চার ও ৪টি ছয়ের মার। ভারতের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৯ রান করেন বিরাট কোহলি। ১০ রান এসেছে লোকেশ রাহুলের ব্যাট থেকে। বাকিদের মধ্যে কেউই দুই অংকের ঘরও স্পর্শ করতে পারেননি। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৪টি উইকেট নেন মার্কো জানসেন। তিনটি করে উইকেট পান কাগিসো রাবাদা ও লুঙ্গি এনগিদি।

প্রথম ইনিংসে প্রোটিয়ারা অলআউট হয় ২১০ রানে। জাসপ্রীত বুমরাহ নেন ৫ উইকেট। মোহাম্মদ শামি ও উমেশ যাদব দুজনেই দুটি করে উইকেট শিকার করেন। প্রোটিয়াদের হয়ে কিগান পিটারসেন ৭২, টেম্বা বাভুমা ২৮, কেশভ মহারাজ ২৫ ও ভ্যান ডার ডুসেন ২১ রান করেন। ভারত প্রথম ইনিংসে অলাআউট হয় ২২৩ রানে। দলীয় ৩১ রানে বিদায় নেন লোকেশ রাহুল। ৬ বলের ব্যবধানে ফিরে যান মায়াঙ্ক আগারওয়াল। প্রতিরোধের ইঙ্গিত দেওয়া পুজারা-কোহলি জুটি ভাঙেন মার্কো জানসেন।

রাবাদার শিকার হয়ে কাটা পড়েন আজিঙ্কা রাহানে। প্রোটিয়াদের পেস দাপটে রিশভ পন্ত ইনিংস বড় করতে পারেননি। যদিও এক প্রান্তে অধিনায়ক কোহলি ছিলেন অবিচল। ক্যারিয়ারের ২৮তম ফিফটি তুলে নিয়ে সেঞ্চুরির পথেই যাচ্ছিলেন। কিন্তু দলীয় ২১১ রানে রাবাদার বলে থামতে হয় ভারত অধিনায়ককে। ২০১৯ এর নভেম্বরের পর টেস্টে সর্বোচ্চ ৭৯ রান আসে তার ব্যাট থেকে। স্বাগতিকদের হয়ে ৪ উইকেট নেন রাবাদা। জানসেন নেন ৩ উইকেট।

এর আগে প্রথম টেস্ট ভারত ১১৩ রানে জয় পায় ভারত। দ্বিতীয় টেস্টেই ঘুরে দাঁড়ায় স্বাগতিকরা। সেই ম্যাচে সফরকারীদের ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারায় প্রোটিয়া শিবির।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়