লকডাউন না দিয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে: এফবিসিসিআই

আগের সংবাদ

নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন পরী মনি

পরের সংবাদ

স্বপ্নের চেঙ্গী সেতু উদ্বোধন, নানিয়ারচরে খুশির জোয়ার

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০২২ , ২:৩১ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০২২ , ২:৩৩ অপরাহ্ণ

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলার চেঙ্গী সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে নানিয়ারচর উপজেলাসহ রাঙ্গামাটির অন্যান্য উপজেলার লাখ লাখ মানুষের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) সকালে নানিয়ারচর উপজেলায় চেঙ্গী সেতুর ভার্চুয়ালি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এই সেতুটি উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪টি উপজেলার কয়েক লাখ মানুষের সড়ক যোগাযোগের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করলেন । উদ্বোধনের পর পরই চলাচলের জন্য সেতুটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। চেঙ্গী সেতু উদ্বোধন হওয়ায় নানিয়ারচরসহ পুরো জেলার সঙ্গে যোগাযোগের নতুন দ্বার উন্মোচিত হলো। সেতু পেয়ে সাধারণ মানুষ ব্যাপক আনন্দিত হয়েছেন।

সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি, কক্সবাজার সদর আসনের এমপি সাইমুম সরোয়ার কমল, খাগড়াছড়ি সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন ব্রিগেডের অতিরিক্ত মহাপরিচালক মুহম্মদ সাইফুর রহমান এসইউপি, এএফ ডব্লিউ সি, পিএসসি, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী, নানিয়ারচর উপজেলার জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল এসএম রুবাইয়েত হোসেন, পিএসপি, রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপার মীর মোহাম্মদ মোদদাছছের হোসেন, রাঙ্গামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহ আরেফিন, নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান প্রগতি চাকমা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলি রহমান তিন্নিসহ সেনাবাহিনীর অন্যান্য উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সেতু উদ্বোধন নিয়ে দীপংকর তালুকদার এমপি জানান, এই একটি সেতু রাঙ্গামাটি জেলার ৪টি উপজেলাকে সংযুক্ত করেছে এবং এর মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির পাশাপাশি ব্যবসায়িক ক্ষেত্রেও বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান প্রগতি চাকমা বলেন, চেঙ্গী সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে আমাদের দীর্ঘদিনের আশা পূরণ হয়েছে। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরোয়ার কমল জানান, ঘুমধূম সীমান্ত সড়ক বাস্তবায়িত হওয়ায় তা এশিয়া হাইওয়েজের মাধ্যমে সুদুর চীন দেশ পর্যন্ত বিস্তৃত হবে।

৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কন্সট্রাকশন এর অতিরিক্ত মহাপরিচালক মুহম্মদ সাইফুর রহমান এসইউপি, এফ ডব্লিউ সি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনী আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে এবং নানিয়ারচর সেতুর মাধ্যমে এ অঞ্চলের ৪টি উপজেলাসহ জেলার সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হবে এবং পর্যটন ও ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে তা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

নানিয়ারচরবাসীর দীর্ঘ দিনের প্রাণের দাবী চেঙ্গী সেতুর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হওয়ায় খুশি এলাকাবাসী। এই সেতুটির মাধ্যমে ৪টি উপজেলাসহ

রাঙ্গামাটির অন্যান্য উপজেলাগুলোও উপকৃত হবে। পার্বত্য চট্টগ্রামের সর্ববৃহৎ সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে পাহাড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থার নতুন দ্বার উন্মোচিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

সেনাবাহিনীর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন ব্রিগেডের তত্ত্বাবধানে এবং ২০ ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন এর বাস্তবায়নে নির্দিষ্ট সময়েই সেতুর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করা হয়। রাঙ্গামাটি নানিয়ারচরের চেঙ্গী নদীর ওপর ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ৫০০ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১০ দশমিক ২ মিটার প্রস্থের এই সেতু নির্মাণে খরচ হয়েছে ১২০ কোটি টাকা।

টিআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়