আইনমন্ত্রীর ঘর দেয়ার প্রতিশ্রুতি, রাবেয়ার দু’ চোখে আনন্দ অশ্রু

আগের সংবাদ

শক্তিশালী পাসপোর্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে ৫ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

পরের সংবাদ

কোহলির ব্যাটে লড়াইয়ের পুঁজি পেল ভারত

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১১, ২০২২ , ১১:১১ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০২২ , ১১:১১ অপরাহ্ণ

কেপটাউনে তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টেস্টে মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বিপদে পড়ে ভারত। দলীয় ১১৬ রান তুলতে হারিয়ে ফেলে টপ অর্ডারের চার ব্যাটসম্যান। সেখান থেকে ব্যাট হাতে দলকে বিপদমুক্ত করে লড়াইয়ে ফেরান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। প্রথম দিন শেষে ভারতকে ২৩৩ রানে গুটিয়ে দিয়ে স্বাগতিকরা ব্যাট করতে নেমে এক উইকেট হারিয়ে তুলেছে ১৭ রান। ভারত এখনো ২০৬ রানে এগিয়ে রয়েছে। বিরাট কোহলি ৭৯ এবং ঋষভ পন্ত ২৭ রানে আউট হন। প্রোটিয়া বোলার রাবাদা ৭৩ রানে ৪ এবং জানসেন ৫৫ রানে ৩ উইকেট লাভ করেন। প্রথম দিন শেষে মারক্রাম ৮ এবং মাহারেজ ৬ রানে অপরাজিত রয়েছেন। এলগারকে ৩ রানে সাজ ঘরে ফেরান পেসার বুমরাহ।

এর আগে মঙ্গলবার কেপটাউনে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। অঘোষিত ফাইনালের প্রথমটা দেখে-শুনেই শুরু করেন সফরকারী দলের দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল ও মায়াঙ্ক আগারওয়াল। সেঞ্চুরিয়নে সিরিজের প্রথম টেস্টে ১২৩ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলে দলকে ১১৩ রানের বড় জয় এনে দিয়েছিলেন রাহুল। বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে দলের নেতৃত্ব নিয়ে দ্বিতীয় টেস্টে জোহানেসবার্গে প্রোটিয়াদের মাটিতে প্রথম টেস্ট সিরিজ জয়ের স্বপ্নও দেখান তিনি। তবে সে ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে সিরিজ সমতায় ফেরে প্রোটিয়ারা। শেষ টেস্টে কোহলি ফিরে আসায় অধিনায়কত্বের চাপ নেই রাহুলের কাঁধে।

৭৩ রানে ৪ উইকেট তুলে নিয়ে সফরকারীদের বেশি দূর এগোতে দেননি প্রোটিয়া পেসার রাবাদা

ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো প্রোটিয়াদের মাটিতেও তার ব্যাটের ওপর ভর করে জয় তুলে নিবে ভারত। কিন্তু কেপটাউনে হাসল না রাহুলের ব্যাট। দলীয় ৩১ রানের মাথায় নিজের উইকেট বিলিয়ে দিয়ে সাজঘরে ফেরেন রাহুল। ডুয়ান্নি ওলিভিয়ারের বলে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়ার আগে ৩৫ বলে ১২ রানের ইনিংস খেলেন রাহুল। এরপর দলের খাতায় ২ রান যোগ না হতেই মাঠ ছাড়েন আরেক ওপেনার মায়াঙ্ক। তাকে শিকার করেন কাগিসো রাবাদা। মায়াঙ্ক ৩৫ বলে তিন বাউন্ডারিতে ১৫ রানের ইনিংস খেলেন। এরপর তৃতীয় উইকেটে নামা চেতশ্বর পূজারার সঙ্গে জুটি গড়ে তোলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

তৃতীয় উইকেট জুটিতে দুজনে মিলে খেলেন ৬২ রানের ইনিংস। ৭৭ বলে ৭ বাউন্ডারির সাহায্য ৪৩ রানের ইনিংস খেলার পথে তাকে সাজঘরে ফেরান মার্কো জানসেন। তবে একপ্রান্ত আগলে ধরে দলকে বিপদ মুক্ত করার প্রয়াস চালিয়ে যান বিরাট কোহলি। তার সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে খুব বেশিক্ষণ সময় দিতে পারেননি আজিঙ্কা রাহানে। ১১৬ রানে ৪ উইকেট হারালে বিপর্যয়ে পড়ে ভারত। সেখানে পঞ্চম উইকেটে ক্রিজে নেমে অধিনায়ককে সঙ্গ দেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্ত। এই ম্যাচে ফেরার আগেই তিনি রানে ফেরার ইঙ্গিত দেন। নিয়মিত সেঞ্চুরি তুলে নেয়া এই ব্যাটসম্যান দীর্ঘদিন পাচ্ছেন না রানের দেখা।

সবশেষ তিনি সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন ২০১৯ সালে ইডেন গার্ডেনে বাংলাদেশের বিপক্ষে। এরপর পাঁচ বার ফিফটির দেখা পেলেও সেটাকে তিনি সেঞ্চুরিতে পরিণত করতে পারেননি। নতুন বছরেও মেলেনি তার কাঙ্খিত সাফল্য। সেঞ্চুরিয়নে সিরিজের প্রথম টেস্টে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৯৪ বল মোকাবিলা করে তিনি ৩৫ রান করেন। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ৩২ বল মোকাবিলা করে ১৮ রান করে আউট হন তিনি। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে দলে ছিলেন না কোহলি।

প্রোটিয়া বোলারদের মধ্য সর্বোচ্চ ৪ উইকেট শিকার করেন রাবাদা। এর আগে সিরিজে প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরিয়নে ১১৩ রানের বড় জয় পায় ভারত। এরপর সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে জোহানেসবার্গে ৭ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে সিরিজ সমতায় ফেরে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর আগে প্রোটিয়াদের মাটিতে গত তিন দশকে ২২টি টেস্ট ম্যাচ খেললেও সিরিজ জয়ের স্বাদ পায়নি ভারত। চলতি সিরিজে তাদের সামনে সুবর্ণ সুযোগ সে রেকর্ড ভেঙে সাদা পোশাকে প্রথম সিরিজ জিতে নেয়া।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়