জন্মদিনে ভক্তদের কী উপহার দিলেন বলিউডের গ্রিক গড

আগের সংবাদ

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তিন দিনেই হার, সিরিজে সমতা

পরের সংবাদ

করোনামুক্ত শিশুদের ডায়াবেটিস!

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১১, ২০২২ , ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০২২ , ১২:২৬ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের দাপট শুরু হওয়ার পর শিশুদের মধ্যে করোনা সংক্রমণের ঘটনা কমই চোখে পড়েছে। মহামারীর একেবারে শুরুর দিকে প্রবীণেরা সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। করোনার ডেল্টা ধরনে মাঝবয়সিদের বেশি ভুগতে দেখা গিয়েছে।

কিন্তু বর্তমানে ওমিক্রন ধরনে ছোটদের মধ্যে করোনা সংক্রমণের ঘটনা বেড়েছে। ওমিক্রনে মৃত্যুর ঝুঁকি হয়তো কম, কিন্তু চিন্তা বাড়াচ্ছে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, করোনা থেকে সেরে ওঠার পরে অনেক শিশুরই টাইপ ১ ও টাইপ ২ ডায়াবেটিস ধরা পড়ছে। এই সংক্রান্ত একটি গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছে আমেরিকার সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন (সিডিসি)।

ইউরোপে ইতোমধ্যেই এ রকম একাধিক ঘটনার কথা জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। তারা বলেছেন, করোনা থেকে সেরে ওঠার পরে টাইপ ১ এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে ছোটদের। কারও কারও ‘ডায়াবেটিক কিটোঅ্যাসিডোসিস’ দেখা যাচ্ছে। এতে রক্তে উপস্থিত শর্করা থেকে শক্তি তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় ইনসুলিন যথেষ্ট পরিমাণে তৈরি হয় না। এ অসুখে শিশুর প্রাণসংশয়ও ঘটতে পারে।

সিডিসি জানিয়েছে, মেডিক্যাল বীমার নথি পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে আমেরিকাতেও করোনার পরে ১৮ বছর বয়সের নীচে ডায়াবেটিস আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে। সিডিসি-র গবেষক শ্যারন সায়াদ বলেন, ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ৩০ শতাংশ বেড়ে যাওয়া কিন্তু খুবই বিপজ্জনক। রিপোর্টের মূল লেখক সায়াদ জানিয়েছেন, কিছু বিষয় এখনও অস্পষ্ট। যেমন করোনার পরে ধরা পড়া ডায়াবেটিস মারাত্মক আকার নেবে কি না জানা নেই। এ-ও স্পষ্ট নয়, এটি সাময়িক অসুস্থতা নাকি।

যে সব বাচ্চা করোনা আক্রান্ত হচ্ছে, তাদের বাবা-মায়ের জন্য সায়াদের পরামর্শ, ভালো করে সন্তানের উপরে নজর রাখুন। ডায়াবেটিসের কোনো উপসর্গ দেখা দিলেই চিকিৎসকের কাছে যান। যাতে দ্রুত চিকিৎসা শুরু করা যায়। শিশুরোগ বিশেষজ্ঞদেরও বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকতে বলেছেন সায়াদ।

যে সব শিশু এখনও করোনা আক্রান্ত হয়নি, তাদের মা-বাবাকে সায়াদের পরামর্শ, অবশ্যই সন্তানকে মাস্ক পরান, পরিবারের বাইরে মেলামেশা থেকে আপাতত দূরে রাখুন।

আমেরিকায় ৫ বছর বয়স পর্যন্ত টিকা গ্রহণের ছাড়পত্র রয়েছে। ইউরোপেও ছোটদের টিকাদান চলছে। কিন্তু বিশ্বের বেশির ভাগ দেশে বাচ্চাদের টিকাদান কর্মসূচি এখনও শুরু হয়নি। এই সব দেশে শিশুদের করোনা থেকে নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়ে জোর দিয়েছেন সায়াদ। কারণ শুধু ভাইরাসের আক্রমণ নয়, তার পরে থাকছে ডায়াবেটিসের মতো রোগের আশঙ্কাও।

করোনা-বিধি ছাড়াও ছোটদের শরীরচর্চায় যুক্ত করার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। মহামারীতে গৃহবন্দি দশায় ওজন বাড়ছে। বাচ্চাদের অস্বাভাবিক ওজন-বৃদ্ধিও ডায়াবেটিস ডেকে আনতে পারে।

টিআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়