ফাইল ছবি

মোটর সাইকেলসহ গাড়ি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

আগের সংবাদ

কর্মচারী নিয়োগে মাউশির 'অনিয়ম' তদন্তে দুদকের অভিযান

পরের সংবাদ

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ: ইসি গঠনে আইন চান কাদের সিদ্দিকী

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২ , ১০:০৯ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ৯, ২০২২ , ১০:০৯ অপরাহ্ণ

নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে আইন প্রণয়ন ও নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সমন্বয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের মাধ্যমে জাতীয় নির্বাচন পরিচালনার প্রস্তাব করেছে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ। এ সময় ইসি গঠনে আইন প্রণয়নসহ ছয়টি লিখিত প্রস্তাবনা দেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতারা।

রবিবার (৯ জানুয়ারি) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সংলাপকালে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতারা এসব প্রস্তাব তুলে ধরেন।

রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে চলমান সংলাপের দ্বাদশ দিনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগনেতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন আবদুল হামিদ। এদিন বিকেল সাড়ে পাঁচটায় কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তমের নেতৃত্বে নয় সদস্যের প্রতিনিধি দল বঙ্গভবনে প্রবেশ করেন। পরে সন্ধ্যা ৬টা থেকে একঘণ্টারও বেশি সময় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপ করেন তারা।

ইসি গঠনে আইন প্রণয়ন ছাড়াও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ছয় দফা প্রস্তাবনায় আরও রয়েছে এই মূহুর্তে আইন প্রণয়ন সম্ভব না হলে অনুসন্ধান (সার্চ) কমিটির পরিবর্তে রাষ্ট্রপতির মাধ্যমে ব্যক্তিত্বসম্পন্ন দেশপ্রেমিক মানুষদের নিয়ে দেশের জনগণের আস্থাভাজন ও গ্রহণযোগ্য পাঁচ সদস্যের একটি নির্বাচন কমিশন গঠন, যেখানে অন্তত দু’জন নারী সদস্য অন্তর্ভুক্ত থাকবে; নির্বাচন কমিশনকে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত না নিয়ে কোনো নির্বাচনী বিধিবিধান প্রণয়ন না করা; নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সমন্বয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের মাধ্যমে জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা প্রভৃতি।

সংলাপ শেষে সন্ধ্যায় বঙ্গভবনের সামনে কাদের সিদ্দিকী সাংবাদিকদের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বৈঠকের আলোচনার বিষয় তুলে ধরে বলেন, নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন হওয়া উচিত। না হলে রাষ্ট্রপতি যেন নিজেই নির্বাচন কমিশন গঠন করেন- সে বিষয়ে একটি প্রস্তাব দিয়েছে তার দল।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটির জন্য কোনো নাম প্রস্তাব করেননি তারা। সেই সঙ্গে সিটি করপোরেশনের নিচে কোনো নির্বাচন দলীয় প্রতীকে না হওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বিএনপির সংলাপে অংশগ্রহণের বিষয়ে কাদের সিদ্দিকী বলেন, বিএনপিরও নির্বাচন ও সংলাপে অংশ নেওয়া উচিত। মতের মিল না হলেই মত প্রকাশ বন্ধ করা উচিত নয়।

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা ছিলেন দলের মহাসচিব হাবিবুর রহমান বীরপ্রতীক, সহ-সভাপতি আমিরুল ইসলাম তারেক, যুগ্ম মহাসচিব ইকবাল সিদ্দিকী, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক নাসরিন কাদের সিদ্দিকী, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ফরিদ আহমেদ এবং ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি রিফাতুল ইসলাম দীপ।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়