কর্মচারী নিয়োগে মাউশির 'অনিয়ম' তদন্তে দুদকের অভিযান

আগের সংবাদ

উপায় এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী রেজাউল হোসেন

পরের সংবাদ

বছরে ১৯৫ কোটি আয়: মদ উৎপাদন দ্বিগুণ করছে কেরু

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৯, ২০২২ , ১০:২৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ৯, ২০২২ , ১০:২৬ অপরাহ্ণ

উৎপাদন দ্বিগুণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে একমাত্র রাষ্ট্রীয় মদ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ প্রতিষ্ঠান কেরু অ্যান্ড কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেড। স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি অবলম্বনের মাধ্যমে উৎপাদন দ্বিগুণ করবে কোম্পানিটি। কেরু অ্যান্ড কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মোশারফ হোসেন বলেন, কেরু থেকে উৎপাদিত বিভিন্ন ব্রান্ডের মদের চাহিদা বাজারে রয়েছে। তবে উৎপাদন সক্ষমতা থাকলেও চাহিদার তুলনায় কম উৎপাদন ও সরবরাহ করা হচ্ছে। চলতি বছর তারা চাহিদা অনুযায়ী মদের উৎপাদন ও সরবরাহ বাড়াতে চাচ্ছেন। সে অনুযায়ী কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, কেরুর কারখানায় উৎপাদন সক্ষমতার মাত্র ৫০ ভাগ মদ উৎপাদন ও সরবরাহ হচ্ছে। পুরো সক্ষমতা কাজে লাগিয়ে উৎপাদনে যেতে চাচ্ছেন তারা।

কোম্পানিটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত বছরের তুলনায় এ বছরের অক্টোবর-ডিসেম্বরে কেরুর উৎপাদিত মদের বিক্রি ৫০ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। এ বছরের অক্টোবরে, নভেম্বর ও ডিসেম্বরে যথাক্রমে ১৮ হাজার ৫৭৯, ১৯ হাজার ৪৪৬ এবং ২১ হাজার কেসেরও বেশি মদ বিক্রি করেছে কেরু। আর ২০২০-২১ অর্থবছরে কেরু মদ বিক্রি থেকে ১৯৫ কোটি টাকা লাভ করেছে।

প্রতিষ্ঠানটি ১৭৫ মিলিলিটার, ৩৭৫ মিলিলিটার ও ৭৫০ মিলিলিটারের বোতলে মদ বাজারজাত করে। একটি কেসে ৭৫০ মিলিলিটারের ১২টি, ৩৭৫ মিলিলিটারের ২৪টি এবং ১৭৫ মিলিলিটারের ৪৮টি মদের বোতল থাকে।

কেরুর উৎপাদিত মদ প্রতি মাসে গড়ে ১২ থেকে ১৩ হাজার কেস বিক্রি হয়ে থাকে। উৎপাদনও সে অনুযায়ী করা হয়। তবে চুয়াডাঙার দর্শনায় অবস্থিত কারখানায় বর্তমানে উৎপাদন সক্ষমতার মাত্র ৫০ শতাংশ ব্যবহৃত হচ্ছে। এ ছাড়া রূপপুর, কক্সবাজার ও কুয়াকাটায় ১টি করে বিক্রয় কেন্দ্র এবং রাজশাহী ও রামুতে ১টি করে ওয়্যারহাউস নির্মাণের মাধ্যমে বাজার সম্প্রসারণের পরিকল্পনাও করেছে কেরু।

বর্তমানে সারা দেশে কেরুর ১৩টি ওয়্যারহাউস ও ৩টি বিক্রয়কেন্দ্র আছে। এরমধ্যে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কেরুর ২টি নতুন বিক্রয়কেন্দ্রের অনুমোদন দিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা। তারা বলেন, বিক্রয়কেন্দ্রগুলো পরিচালনা করার জন্য পর্যটন করপোরেশনের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর করবে কেরু।

৮৩ বছরেরও বেশি পুরনো প্রতিষ্ঠানটির ৯টি ব্র্যান্ড রয়েছে। এগুলো হচ্ছে- ইয়েলো লেবেল মল্টেড হুইস্কি, গোল্ড রিবন জিন, ফাইন ব্র্যান্ডি, চেরি ব্র্যান্ডি, ইম্পেরিয়াল হুইস্কি, অরেঞ্জ কুরাকাও, জারিনা ভদকা, রোসা রাম ও ওল্ড রাম।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়