মাদক মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে চার্জশিট

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

দেশে পূর্নাঙ্গ বিশ্বমানের বন্ড মার্কেট বাস্তবায়ন করতে হবে

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৬, ২০২২ , ৭:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ৭, ২০২২ , ৩:৫৬ পূর্বাহ্ণ

বন্ড বাজার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য অর্থায়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎস। আমাদের বাংলাদেশে একটি পূর্নাঙ্গ বিশ্বমানের বন্ড মার্কেট বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশে একটি সক্রিয় বন্ড মার্কেটের বিকাশ আর্থিক অবকাঠামো গভীর করার ক্ষেত্রে সুদূরপ্রসারী সুফল বয়ে আনবে। এটি দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে সাহায্য করবে এবং স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের তাদের সম্পদ বরাদ্দ প্রক্রিয়া আরও ভালোভাবে পরিচালনা করার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রণোদনা দেবে।

চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জ লিমিটেডের (সিএসই) চট্টগ্রামের প্রধান কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) তিনটি বন্ডের লেনদেন শুরু উপলক্ষ্যে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিএসইর পরিচালক মেজর (অব.) এমদাদুল ইসলাম এসব কথা বলেন। বন্ড তিনটি হচ্ছে, আল-অরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের এআইবিএল মুদারাবা পারপিচুয়াল বন্ড, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের এসজেআইবিএল মুদারাবা পারপিচুয়াল বন্ড এবং ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের আইবিবিএল সেকেন্ড পারপিচুয়াল মুদারাবা বন্ড।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্থপতি সোহাইল মোহাম্মদ শাকুর এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম ফারুক, আল-অরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের সম্মানিত প্রতিনিধি এবং ইস্যু ব্যবস্থাপক প্রতিষ্ঠানগুলো, ইউসিবি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ইসলামী ব্যাংক ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট এবং প্রাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের প্রতিনিধিসহ আরও অনেকে।

স্বাগত বক্তব্যে সিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) গোলাম ফারুক বলেন, বাংলাদেশে বন্ড মার্কেট খুবই ছোট। বাংলাদেশের জিডিপিতে বন্ডের অবদান খুবই নামমাত্র। কোম্পানীগুলোর মূলধন সংগ্রহে ব্যাংক ঋনের উপর বেশি নির্ভরশীল হওয়ায় এ বাজারে গভীরতা বাড়েনি। বন্ডের কম সরবরাহ বন্ড বাজার বিকাশের জন্য অনুকূল নয়। একটি কার্যকরী বন্ড বাজার থাকলে, সরকার মেগা অবকাঠামো প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সহজেই তহবিল সংগ্রহ করতে পারত। বন্ডগুলি ইক্যুইটির জন্য দীর্ঘমেয়াদী এবং স্বল্পমেয়াদী অর্থায়নের বিকল্প হিসেবে কাজ করে। বন্ডগুলি যদি ক্রমান্বয়ে পুজিঁবাজারে ট্রেডিং হওয়া শুরু হয়, তবে বন্ড মার্কেটের আকারও বাড়বে, একইসঙ্গে পুজিঁবাজারে পণ্যের বৈচিত্র্যও আসবে। আর সেক্ষেত্রে পুঁজিবাজার জিডিপি বৃদ্ধির ধারা আট শতাংশ ধরে রাখার পাশাপাশি এসজিডি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সহযোগী খাত হিসাবে উন্মোচিত হবে বলে আশা করছি।

অনুষ্ঠানে ইস্যুয়ার এবং ইস্যু ব্যবস্থাপক এর প্রতিনিধিরা তাদের প্রতিক্রিয়ায় জানান, তারা বেশ আনন্দিত এবং এ কার্যক্রমের সাথে যুক্ত হতে পেরে সার্বিকভাবে সম্মানিত যা তাদেরকে সামনের পথচলায় স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করবে। তারা সিএসইকে সাথে নিয়ে বন্ড মাকেট প্রসারের বিভিন্ন প্রশিক্ষন ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান আয়োজন করতে আগ্রহী।

সমাপনী বক্তব্যে সিএসইর পরিচালক স্থপতি সোহাইল মোহাম্মদ শাকুর বলেন, আমাদের দেশের প্রেক্ষিতে অর্থনীতির বিকাশ, বেসরকারি খাতের উন্নয়ন, পুজিঁবাজারের অর্থাভাব দূর এবং ব্যাংক খাতের নির্ভরশীলতা কামাতে শক্তিশালী বন্ড মার্কেটের বিকল্প নেই। সেই উন্নয়নের ধারা বর্তমান কমিশনের নেতৃত্বেই আমরা সফল হতে চলেছি। আমাদের সরকার এবং বিএসইসি একটি শক্তিশালী বন্ড মার্কেটের উন্নয়নে আগ্রহী।

গত বছরের ৩১ অক্টোবর সিএসইতে লার্জ স্কেল পাইলটিংএর আওতায় বিএসইসির সার্বিক তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন মেয়াদে চারটি সরকারি ট্রেজারি বন্ডের লেনদেন শুরু হয়েছে। যা পুজিঁবাজারের জন্য অসাধারণ মাইলফলক।

আর- এমএস / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়