নতুন বছরে নতুন ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা উত্তর কোরিয়ার

আগের সংবাদ

ভায়াগ্রা নিয়ে মিরাকেল ভাবে বেঁচে গেল করোনা রোগী

পরের সংবাদ

যে স্বপ্ন ঘুমাতে দেয়নি মুমিনুলকে

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৫, ২০২২ , ১২:৩৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১০, ২০২২ , ৩:৩১ অপরাহ্ণ

মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে নিশ্চিত ড্রয়ের পথে থাকা ম্যাচটিতে জয়ের দেখা পেল বাংলাদেশ। অথচ দেশের মাটিতেই ধারাবাহিক পরাজয়ের পর বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিউজিল্যান্ডের মাটিতে আদৌ কোনো জয় পাবে এটা কোনো সমর্থকও হয়তো ভাবতে পারেননি।

সেখানে রীতিমতো রেকর্ড গড়ে নিউজিল্যান্ডকে ৮ উইকেটে হারিয়ে কিউইদের দূর্গ চূর্ণ করে ফেলেছে মুমিনুলের নেতৃত্বে বাংলাদেশ দল। অথচ সবাই ধরে নিয়েছিল এ টেস্ট ড্র হবে। কিন্তু স্বাপ্নিক মুমিনুলের মনে এবাদত হোসেনের এক স্পেলে ইতিহাস গড়ার হাতছানি দেখল। তাইতো এমন রোমাঞ্চ নিয়ে পরের দিনের ম্যাচ জয়ের ছক সাজিয়ে নির্ঘুম রাত কাটালেন মুমিনুল।

এ আকাশছোঁয়া জয়ের আগের রাতে সারারাত ঘুমাতে পারেননি বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক। ঠিক যেন ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি এপিজে আব্দুল কালামের সে বিখ্যাত উক্তির মতো যে স্বপ্ন ঘুমাতে দেয় না।

তাই তো খেলার পর সংবাদ সম্মেলনে এসে মুমিনুল বললেন, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ঐতিহাসিক জয়ের পর ফলাফলের চিন্তায় না গিয়ে প্রক্রিয়া মেনে পরিকল্পনার বাস্তবায়নের দিকে ধাবিত হওয়াই ছিল আমাদের লক্ষ্য।

তারপর মুমিনুল জানালেন, গতকাল রাতে রুমে যাওয়ার পর সত্যি কথা বলতে আজ কী হবে সেটা ভেবে আমি ঘুমাতে পারিনি। যখনই নিউজিল্যান্ডের পাঁচটা উইকেট পড়ে গেল, মনে হচ্ছিল ওরা বেশি রান করতে পারে আবার কম রানও করতে পারে। এই টেনশনে আমার ঘুম একটু কম ছিল।

মুমিনুলের ভাষায়, আমরা ফল নিয়ে চিন্তা করিনি। আমি এখন বললে হয়তো অনেকে বলবে লোকটা পাগল হয়ে গিয়েছে। আমাদের ভেতরে ছিল, প্রক্রিয়া অনুযায়ী যেন খেলতে পারি। যেমন ব্যাটিংয়ের সময় লম্বা সময় ধরে খেলার লক্ষ্য ছিল। বোলিংয়ে একটা জায়গায় বল করব ঠিক করে রেখেছিলাম।

এবাদতের দুর্দান্ত স্পেলের পরেও নিজেদের শান্ত রেখেছে বাংলাদেশ দল। তারা শেষ বল পর্যন্ত অপেক্ষা করেছে। মুমিনুল জানান, শেষ বেলায় এবাদত যখন হঠাৎ করেই উইকেট নিল, তখন মনে হলো, এ টেস্ট জেতার জন্য যাচ্ছি। আজ অলআউট হওয়ার পর নিশ্চিত হয়েছি। তবে বাড়তি উত্তেজনা কাজ করছিল না। টিভিতে দেখতে থাকলে দেখবেন, আমরা সবাই শান্ত থাকার চেষ্টা করেছি। বল ধরে ধরে খেলার চেষ্টা করেছি—ব্যাটিং, বোলিং। ব্যাটিংয়ে শুরুতে চাপে ছিলাম। মুশফিক ভাই ওই দুইটা রান নেওয়ার পরই মনে হয়েছে আমরা ম্যাচটা জিতে গিয়েছি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়