নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

টিকা ছাড়া রেস্টুরেন্টে খাবার নয়

পরের সংবাদ

পটুয়া কামরুল হাসানের শতচিত্রের বিশেষ প্রদর্শনী

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৩, ২০২২ , ৮:২৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০২২ , ৮:২৮ অপরাহ্ণ

জাতীয় জাদুঘর এ যাবৎ পটুয়া কামরুল হাসানের ১,৮৪৫টি শিল্পকর্ম সংগ্রহ করেছে। সেই শিল্পকর্মের মধ্য থেকে বাছাইকৃত ১০০টি শিল্পকর্ম উপস্থাপন করা হয়েছে। মুজিববর্ষ, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও পটুয়া কামরুল হাসানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে পটুয়া কামরুল হাসানের শতচিত্রের এ বিশেষ প্রদর্শনী ২০২২-এর আয়োজন করা হয়েছে।

সোমবার (৩ জানুয়ারি) বিকেলে জাতীয় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী প্রদর্শনী গ্যালারিতে সমকালীন শিল্পকলা ও বিশ্বসভ্যতা বিভাগ আয়োজিত বারদিনের শতচিত্রকর্ম প্রদর্শনীটির উদ্বোধন করেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্পী কন্যা সুমনা হাসান, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান, চারুকলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক নিসার হোসেন, শিল্পাচার্যের কনিষ্ঠ পুত্র মঈনুল আবেদিন এবং বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজ সভাপতি অধ্যাপক ড. আ.আ.ম.স. আরেফিন সিদ্দিক।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কে এম খালিদ বলেন, বাঙ্গালীর চিন্তা ও চেতনা, প্রকৃতির রূপ এবং সংস্কৃতির বিকাশমান ধারা-এ প্রদর্শনীর মাধ্যমে দেশের মানুষ জানতে পারবে। বিশেষ করে নতুন প্রজন্ম জানতে পারবে। এর ফলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তারা উজ্জীবিত হবে।

এ প্রদর্শনীতে শিল্পীর স্কেচ, প্যাস্টেল রং, পোস্টার রং, জল রং, তেল রং, উডকাট প্রিন্ট, কাঠখোদাই, লিনোকাট, সেরিগ্রাফ, এচিং এবং লিথোগ্রাফের মাধ্যমে সরল এবং সাবলীল শিল্পকর্ম উপস্থাপন করা হয়েছে। প্রদর্শনীর শিল্পকর্মের উল্লেখযোগ্য বিষয় হলো- স্কেচ, লোকজ নকশা, রমণী, পশু-পাখি, নিসর্গ, মুক্তিযুদ্ধ। জাদুঘরে সংগৃহীত শিল্পকর্মের মধ্যে উল্লেখযোগ্য শিল্পকর্ম হলো- মাছধরা, তিনকন্যা, নিসর্গ, প্রকৃতি, বাংলার রূপ, কম্পোজিশন, মা ও শিশু, প্রসাধনরত নারী, নারী ও কলস, বাংলার মেয়ে, গ্রাম্যবঁধূ, গ্রাম্য রমণী, স্নান, নাইয়র, রমণী ও পাখি, পাখির ঝাঁক, বক, হাতি, মাছ, বাঘ, গরু, কৃষক, পাখিওয়ালা, গুনটানা ও লাঠিয়াল। মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশবাসীকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য আঁকেন তার বিখ্যাত পোস্টার ‘এই জানোয়ারদের হত্যা করতে হবে’। মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ার কিছুক্ষণ আগেই আঁকা শেষ করেন ‘দেশ আজ বিশ্ব বেহায়ার খপ্পরে’। এসব শিল্পকর্মও প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে।

প্রদর্শনী চলবে ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত। শনি থেকে বুধবার বেলা সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৭টা পর্যন্ত। বৃহস্পতিবার ও সরকারি ছুটির দিন প্রদর্শনী বন্ধ থাকবে। প্রদর্শনীটি বিনা টিকিটে সকলের জন্য উন্মুক্ত।

রি-এসবি/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়