অটো চালাচ্ছেন সালমান খান!

আগের সংবাদ

নতুন বছরে প্রবাসীদের যে উপহার দিল সরকার

পরের সংবাদ

সৌভাগ্যের ছোঁয়া পেতে প্রতিবেশীর বাড়িতে ঢিল!

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১:১১ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১, ২০২২ , ১:২০ অপরাহ্ণ

নতুন বছরের সূচনা অনেকের কাছেই খুব গুরুত্বপূর্ণ। কেমন যাবে নতুন বছর, তার একটা মহড়া যেন এদিন হয়ে যায়। অনেকেই এদিন কিছু কিছু নিয়মকানুন মেনে চলেন। বিশ্বজুড়ে এ নিয়ে নানা সংস্কার আছে। যেমন স্পেনে এদিন আঙ্গুর খাওয়ার চল। সেই উনিশ শতক থেকে চলছে। এদিন সেখানে ১২টি আঙ্গুর খাওয়ার রীতি। বিশ্বাস, তা হলেই নতুন বছর ভালো কাটবে। খবর জি নিউজের।

সংগৃহীত

রাশিয়ায় আবার বরফাচ্ছন্ন হ্রদের নিচে গাছ রোপনের রীতি প্রচলিত। সেখানে গত ২৫ বছর ধরে প্রশিক্ষিত ড্রাইভার রাখা হচ্ছে। যারা ১০০ ফুট জলের নীচে নেমে উইশ প্ল্যান্ট পুঁতে দিয়ে আসছেন।

ইটালিয়ানরা এমনিতেই একটু রোমান্টিক ধাচের। তারা এদিন লাল রঙের অন্তর্বাস পরে। তাদের কাছে লাল উর্বরতার রঙ। চিলিতে আবার এই দিনটি সকলে সমাধিস্থানে প্রার্থনায় সময় কাটায়। মৃত প্রিয়জনদেরও তারা নববর্ষের আনন্দে যুক্ত করে নেন।

ডেনমার্কে আবার এক আশ্চর্যের জিনিস ঘটে। এদিন এখানে প্রতিবেশীরা পরস্পরের বাড়ির দরজা লক্ষ্য করে ডিশ ছোঁড়েন। ডেনমার্কবাসীরা মনে করেন, এই ভাবেই আসলে বছরের পুরনো পাপ বেরিয়ে যায়। যার বাড়ির দরজার সামনে যত ভাঙা ডিশ নতুন বছরে তিনি তত সৌভাগ্যবান হতে চলেছেন।

ফাইল ছবি

চেক প্রজাতন্ত্রে আপেলই সৌভাগ্য নির্ধারক। সেদেশে আপেল অর্ধেক কেটে ফেলা হয়। দেখা হয় আপেল কোরটি। মনে করা হয়, আপেল কোরই সৌভাগ্যের সূচক।

কোথাও কোথাও আবার ভরপুর খাওয়া-দাওয়াই দস্তুর। এতসোনিয়ায় এক একজন ১২টি করে মিল খায়। গ্রিসে আবার বাড়ির সামনের দরজায় একটি কি দুটি পেঁয়াজ টাঙিয়ে দেওয়া হয়। এটি পুনর্জন্মের প্রতীক।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়