হত্যা ও ক্যুর মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করতে চায় বিএনপি: সেতুমন্ত্রী

আগের সংবাদ

অনুশীলনে ফিরে উচ্ছ্বসিত টাইগাররা

পরের সংবাদ

পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবন উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২১, ২০২১ , ৭:১৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২১, ২০২১ , ৭:১৩ অপরাহ্ণ

পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা সমাজের সবচেয়ে প্রান্তিক এবং সামাজিকভাবে বর্জিত জনগোষ্ঠী। এমনকি একই এলাকায় থাকা অন্যান্য প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মানুষও তাদের অবমূল্যায়ন করে থাকে। তাদের জীবন ও জীবিকার উন্নয়নের জন্য যৌথ উদ্যোগ খুবইগুরুপূর্ণ। মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) ব্র্যাক আরবান ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রাম ও দ্য কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের সুস্থ্যতার বিষয়ে যৌথভাবে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টার ইনে সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বক্তারা বর্জ্য ব্যাবস্থাপনায় বিদ্যমান অনানুষ্ঠানিকতার কথা এবং বন্ধন প্রকল্পের ফলাফল ও ঢাকা শহরের ১৩টি নিম্ন আয়ের জনবসতিতে ‘বন্ধন’ প্রকল্প নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। তারা মূল নীতি-নির্দেশনা নিয়েও আলোচনা করেন। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য ছিল ঢাকা শহরের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবন ও জীবিকার জন্য একটি নিরাপদ মডেল গড়ে তোলা।

প্রকল্পের ফলাফল থেকে দেখা যায় যে, পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের আয়, জীবনযাপনের মান, মৌলিক সেবার প্রাপ্যতা, সামাজিক মর্যাদা, নিরাপত্তা, সংস্থা এবং আর্থিক অন্তর্ভুক্তির জন্য আরো বেশি পরিমাণে ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রয়োজন। বর্জ্য ব্যাবস্থাপনা ইকোসিস্টেমকে ঢেলে সাজানোর জন্য জোরদার নীতি- নির্দেশনা ও উদ্যোগ ছাড়া টেকসই পরিবর্তন সম্ভব নয়।

আয়োজকরা জানান, কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের সঙ্গে মিলিতভাবে পাইলট প্রকল্প ‘বন্ধন’ বাস্তবায়নে কাজ করছে ব্র্যাক আরবান ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রাম। এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো কমিউনিটি সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে একটি বিশেষ সেবা প্যাকেজ ব্যবহার করে ঢাকা শহরের ৩ হাজার ৫০০ পরিচ্ছন্নতা কর্মীর সুস্থ্যতা নিয়ে কাজ করা।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা। বিশেষ অতিথি পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক রাজিনারা বেগম, ঢাকা উত্তরসিটি করপোরেশনের ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেওয়ান আবদুল মান্নান, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. তারিক বিন ইউসুফ এবং কোকা-কোলা বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক তা জি তুং।

এতে সভাপতিত্ব করেন ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ। এছাড়াও ব্র্যাক ও ব্র্যাক ইন্টারন্যাশনালের ক্লাইমেটচেইঞ্জ প্রোগ্রাম এবং ব্র্যাকের আরবান ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামের পরিচালক ড. মো. লিয়াকত আলী এবং প্র্যাকটিক্যাল অ্যাকশনের আরবান ও এনার্জি বিভাগের স্ট্র্যাটেজিক লিড উত্তম কুমার সাহা।

এ সময় অংশগ্রহণমূলক সমাজ গড়ে তুলতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) কাজ করছে বলে জানিয়েছেন সংস্হাটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা। তিনি বলেন, সমাজে আমরা একত্রে কাজ করে আমাদের শহরের পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবনের উন্নতি ঘটাতে পারি। এই সেমিনারের ফলাফল থেকে পরামর্শ নিয়ে পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জীবনের মান উন্নয়নে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।

কোকা-কোলা ফাউন্ডেশনের একজন মুখপাত্র বলেন, আমাদের বৈশ্বিক সাসটেইনেবিলিটি লক্ষ্যের একটি মূল অংশ হলো বর্জ্যমুক্ত পৃথিবী গড়ে তোলা। ফলে পরিবেশের পরিছন্নতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে এবং সমাজে পরিছন্নতাকর্মীদের অবদানের গুরুত্ব আমরা বুঝি। আমরা চাই, তাদের কাজের যথাযথ মূল্যায়ন হোক। তাই বন্ধন প্রকল্পে যুক্ত হতে পেরে আমরা আনন্দিত। এই প্রকল্পের ইতিবাচক ফলাফলও আমাদের জন্য আনন্দদায়ক।

ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ বলেন, যারা আমাদের শহরগুলোকে সচল রাখেন, তারাই সবচেয়ে বেশি অবহেলিত। পরিচ্ছন্নতা কর্মীরাও এর ব্যতিক্রম নন। শহর অঞ্চলের বিভিন্ন জনগোষ্ঠীকে তাদের সামগ্রিক সুস্থ্যতার বিষয়ে সমর্থন করার জন্য আমরা কাজ করছি। বন্ধন প্রকল্প এই উদ্যোগের ক্ষেত্রে একটি পদক্ষেপ। অন্যান্য সকল শহরেও পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের সাহায্য করার জন্য এই প্রকল্পকে আমাদের আরো বড় আকারে রূপ দিতে হবে।

রি-আরজে/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।