সুবর্ণজয়ন্তীতে অংশ নিচ্ছে সাত দেশের সামরিক দল

আগের সংবাদ

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও ৫৩ রোগী হাসপাতালে

পরের সংবাদ

ওমিক্রন নিয়ে কতটা প্রস্তুত বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২১ , ৬:০২ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২১ , ৬:১৪ অপরাহ্ণ

বিশেষজ্ঞদের দাবি, ওমিক্রনের সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশফেরত সব যাত্রীর স্থল ও বিমানবন্দরে র‍্যাপিড পরীক্ষা করতে হবে। একই সঙ্গে দেশে ওমিক্রনের অস্তিত্ব জানতে জিনোম সিকোয়েন্স নির্নয়ের পরামর্শ এবং অতি সংক্রামক এ ভ্যারিয়েন্টের ভয়াবহতা ঠেকাতে এখন থেকেই হাসপাতাল ব্যবস্থাপনায় আগাম প্রস্তুতি নিতে হবে।

সমগ্র বিশ্বে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে কোভিডের নতুন এ ধরন। বিশ্বের প্রায় ৪০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে নতুন এ ধরনটি। এরই মধ্যে প্রতিবেশী ভারত আর শ্রীলঙ্কায়ও হানা দিয়েছে অতি সংক্রামক এ ভ্যারিয়েন্ট।

এমতাস্থায় উড়িয়ে দেওয়া যায় না কোনো শঙ্কাই। এত কিছুর পরও সীমান্ত এলাকায় কড়াকড়ি কতটা পর্যাপ্ত, তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। তবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, অন্য দেশ থেকে আসাদের স্থল ও বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং করানোর পাশাপাশি সন্দেহভাজনদের র‍্যাপিড টেস্টের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে বিদেশ থেকে যারাই আসবেন, সবারই র‍্যাপিড টেস্ট করানোর পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।

অধ্যাপক ডা. রিদওয়ানউর রহমান বলেন, আমাদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করতে হবে। টেস্টিং ক্যাপাসিটি বাড়াতে হবে। নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া কেউ দেশে আসতে পারবে না।

তবে বিশেষজ্ঞদের মত, ওমিক্রন শনাক্তের জন্য জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের ওপর জোর দিতে হবে।

অধ্যাপক ডা. রিদওয়ানউর আরও বলেন, ইচ্ছা থাকলে এটা রুটিন অনুযায়ী করা সম্ভব। মিনিমাম একটা বাজেট দিতে হবে। সরকারকে বলতে হবে, আপনারা টেস্ট করতে থাকেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, ওমিক্রনের বিস্তারে আগাম প্রস্তুতি নিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে হাসপাতালগুলোতে। আর সবার টিকা নিশ্চিত ও স্বাস্থ্যবিধির ওপর জোর দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়