রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাপানের আশ্বাস

আগের সংবাদ

খালেদা জিয়ার কিছু হলে সরকার দায়ী থাকবে: মির্জা ফখরুল

পরের সংবাদ

বিশ্ব অভিবাসন প্রতিবেদন

বিশ্বে অভিবাসী প্রেরণে বাংলাদেশ ষষ্ঠ, রেমিট্যান্সে অষ্টম

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২১ , ৭:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২১ , ৭:০৬ অপরাহ্ণ

করোনার কারণে বিশ্বব্যাপী কঠোর বিধিনিষেধ ও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও বিপর্যয়, সংঘাত ও সহিংসতার কারণে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুতি বেড়েছে। বিশ্বে ২০২০ সালে আন্তর্জাতিক অভিবাসীর সংখ্যা ছিল ২৮ কোটি ১০ লাখ। বাংলাদেশ অভিবাসী পাঠানোর দিক থেকে বিশ্বে ষষ্ঠ এবং রেমিট্যান্স নেয়ার দিক থেকে অষ্টম।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার বিশ্ব অভিবাসন প্রতিবেদন ২০২২-এ এসব তথ্য উঠে এসেছে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে অভিবাসন বিষয়ক সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে জাতিসংঘের এ সংস্থাটি। আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদনটিতে গত দুই বছরে বিশ্বব্যাপী অভিবাসন খাতের আদ্যপান্ত তুলে ধরা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বিষয় বিশ্লেষণে বিবেচনায় নেয়া হয়েছে অভিবাসনের ঐতিহাসিক ও সমসাময়িক কারণগুলো।

প্রতিবেদন সম্পর্কে আইওএমের মহাপরিচালক অ্যান্টোনিও ভিটোরিনো বলেন, আমরা একটি বৈপরীত্য লক্ষ্য করছি, যা মানব ইতিহাসে আগে দেখা যায়নি। কোভিড-১৯ এর কারণে শত কোটি মানুষ আটকা পড়েছেন। তারপরও লাখ লাখ বাস্তুচ্যুতির ঘটনায় বিপুলসংখ্যক মানুষ গৃহহীন হতে বাধ্য হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বব্যাপী আকাশপথে যাত্রী সংখ্যা ৬০ শতাংশ কমেছে। ২০১৯ সালে যাত্রীর সংখ্যা ছিল চার দশমিক পাঁচ বিলিয়ন, যা ২০২০ সালে এক দশমিক আট বিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। একই সময়ে দুর্যোগ, সংঘাত ও সহিংসতার ফলে অভ্যন্তরীণ বাস্তুচ্যুতির সংখ্যা বেড়ে ৪০ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন হয়েছে, যা এক বছর আগে ছিল ৩১ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়