নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

দুপুরে বিএনপির সমাবেশ নয়াপল্টনে, চলছে প্রস্তুতি

পরের সংবাদ

ছাত্র নিহতের প্রতিবাদে রামপুরায় শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ (ভিডিও)

প্রকাশিত: নভেম্বর ৩০, ২০২১ , ১১:১১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০২১ , ১:৩১ অপরাহ্ণ

রাজধানীতে বাসচাপায় এসএসসি পরীক্ষার্থী মাইনুদ্দিন দুর্জয় নিহত হওয়ার ঘটনায় এবার রামপুরা ব্রীজের রাস্তা বন্ধ করে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) একরামুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয় (বালক শাখা), বিএএফ শাহীন কলেজ, ইম্পেরিয়াল কলেজ ও একরামুন্নেছা স্কুল অ্যান্ড কলেজ শিক্ষার্থী সেখানে মানববন্ধন করে।

এসময় বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের হাতে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড দেখা যায়। এর মধ্যে কয়েকটিতে লেখা ছিল, ‘আমার বাবা কাঁদছে নিরাপদ সড়কের দাবিতে’, ‘ছাত্রজনতা ঐক্য গড়, নিরাপদ সড়কের দাবি তোল’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘অ্যাম আই নেক্সট’, ‘রাতের আঁধারে শিক্ষার্থী মরে, প্রশাসন ঘুম পাড়ে’।

এসময় তারা ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ বলে স্লোগান দিচ্ছিলেন। আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী বলেন, আমার ভাই মাইনুদ্দিন ও নাঈম হত্যার বিচার চাই। সেইসঙ্গে সড়কে নিরাপত্তা চাই।

রাজধানীতে বাসচাপায় নিহত মাঈনুদ্দিন

গতকাল সোমবার রাতে অনাবিল বাসের চাপায় নিহত হয় শিক্ষার্থী মাইনুদ্দীন। জানা যায়, চায়ের দোকানে মাইনুদ্দিন কাজ করছিলো। রাত ৯টার দিকে রামপুরা বাজারের দিকে এক বন্ধুর বাসায় যায় সে। সেখান থেকে ফেরার পথেই রামপুরা এলাকায় লাজ ফার্মার সামনে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এদিকে এ ঘটনায় ঢাকা মহানগর পুলিশের মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার আব্দুল আহাদ বলেন, মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় ঘাতক বাস চালককে আটক করেছে পুলিশ। তাদের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স এর খিলগাঁও স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা মো. হাসান আলী বলেন, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে ঘণ্টাখানেকের চেষ্টায় গাড়িতে দেয়া আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। বিক্ষুব্ধ জনতা চারটি গাড়ি ভাঙচুরসহ একটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এদিকে এ ঘটনায় রামপুরা বাজার এলাকার দুই পাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। রাত দুইটার দিকে পুনরায় যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

২৪ নভেম্বর বেলা ১১টায় রাজধানীর গুলিস্তানে দক্ষিণ সিটির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান মারা যায়। সে ওই কলেজের মানবিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনার ঠিক পরদিন অর্থাৎ ২৫ নভেম্বর ডিএনসিসির ময়লার গাড়ির ধাক্কায় আহসান কবির খান নামে এক ব্যক্তি মারা যান। এ দুই ঘটনার পর থেকে সড়কে মৃত্যু নিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে মুখর রাজধানী। শিক্ষার্থীরা নিরাপদ সড়কসহ বিভিন্ন দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে জমায়েত হয়ে আন্দোলন করছে। এমন পরিস্থিতিতেই রাজধানীর সড়কে আরও এক শিক্ষার্থীর প্রাণ গেল।

ডি-এফবি / এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়