ধর্ষণ ও হত্যা মামলার আসামি শকুরের মৃত্যুদণ্ডের রায় স্থগিত

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

নির্বাচনী সহিংসতায় ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ৩:৫৩ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২১ , ৩:৫৪ অপরাহ্ণ

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় খনগাঁও ইউনিয়নের ঘিডোব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোটগণনার পরে কারচুপির অভিযোগ ও ফলাফলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে তিনজন নিহত ও অন্তত চারজন আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। রবিবার রাতে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- ঘিডোবপুর গ্রামের সাহাবলি আহম্মেদ (৩৫), মোজাহারুল ইসলাম (৪০) ও অবিনাশ চন্দ্রের ছেলে আদিত্য (২০)। ঘটনাস্থলেই দুজন ও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তিনি খনগাঁও গ্রামের তৈয়বুর রহমানের ছেলে রাব্বানী (১৮)। আহত দুজন পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আসাদুল ইসলাম ও তোফায়েল আহমেদ জানান, গতকাল রাতে ভোটের ফলের কাগজ পোলিং এজেন্টদের কাছে সরবরাহ করা হচ্ছিল না। এতে এজেন্টরা ক্ষুব্ধ হন। ভোটারদের মধ্যেও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তাঁরা লাঠিসোঁটা নিয়ে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা বিজিবির সদস্যদের দিকে তেড়ে আসেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিজিবি গুলি ছোড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে তিনজন মারা যান। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

গ্রামবাসীর ভাষ্য, খনগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে পীরগঞ্জ উপজেলার ঘিডোব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গণনা ও অন্যান্য কার্যক্রম শেষে গতকাল রাত সাড়ে নয়টার দিকে উত্তেজিত জনতাকে নিবৃত্ত করতে বিজিবি ৪৫ থেকে ৫০টি গুলি ছোড়ে। এতে হতাহত হওয়ার ওই ঘটনা ঘটে। পরে স্কুলের মাঠ ফাঁকা হয়ে গেলে বিজিবি, পুলিশ ও আনসার সদস্যরা ভোটের মালপত্র নিয়ে রাত সাড়ে ১০টার দিকে এলাকা থেকে চলে যান। হতাহত ব্যক্তিরা মাঠে পড়ে ছিলেন।

ঘিডোব প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. জামালউদ্দীন বলেন, আমি ভোট কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে কাগজপত্র জমা দিতে ঘটনার আগেই উপজেলায় চলে আসি। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু হামিদ মণ্ডল বাদী আজ সোমবার দুপুর ১২টায় মামলা করেন। মামলায় অজ্ঞাতনামা ৭০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। নির্বাচনে দায়িত্ব পালনে থাকা লোকজনের ওপর আক্রমণ করলে এই ঘটনা ঘটে। এটা অস্বাভাবিক ঘটনা।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়