কাতার বিশ্বকাপে কি খেলতে পারবেন রোনালদো

আগের সংবাদ

বাসে অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে আজ আবার অবরোধ

পরের সংবাদ

কথা আছে বলে ছাদে ডেকে স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৭, ২০২১ , ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৭, ২০২১ , ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ

স্ত্রীর সঙ্গে ‘জরুরি কথা আছে’ বলে ছাদে নিয়ে যান স্বামী। তারপর সেখানে বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে স্ত্রীর গলা কেটে হত্যা করেন তিনি। এরপর দ্রুত পালিয়ে যান। ঘটনাটি শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) রাত পৌনে আটটায় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের তারগাছ এলাকায় ঘটেছে।

নিহত নারীর নাম জোনাকি আক্তার (২২)। সুনামগঞ্জের দোয়ারা সদর বাজার এলাকার আবদুল বারেকের মেয়ে তিনি। চাকরি করতেন স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায়।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রায় তিন বছর আগে জোনাকির সঙ্গে সুজন মিয়ার (৩০) বিয়ে হয়। পেশায় তিনি রাজমিস্ত্রি। তিনি স্ত্রীর পরিবারের সঙ্গে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দুলাল মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকেন।

গত কয়েকদিন ধরে তাদের মধ্যে দাম্পত্যকলহ চলছিল। দুজনেই আলাদা থাকছিলেন। শুক্রবার স্ত্রীকে ‘জরুরি কথা আছে’ বলে ছাদে নিয়ে যান সুজন মিয়া। সেখানে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয় এবং এক পর্যায়ে জোনাকিকে গলা কেটে হত্যা করেন। এ সময় জোনাকির চিৎকার শুনে শ্বশুরবাড়ির লোকজন ছুটে আসেন এবং তাকে গলা কাটা অবস্থায় দেখতে পান।

জোনাকির বাবা আবদুল বারেক বলেন, তার মেয়ের স্বামী সুজন হঠাৎ বাসায় এসে জোনাকিকে বলেন, ‘তোমার সঙ্গে কথা আছে। বাড়ির ছাদে এসো।’ এ বলে বাড়ির ছাদে নিয়ে জোনাকিকে হত্যা করে পালিয়ে যান।

গাজীপুর মেট্রোপলিটনের গাছা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, নিহত জোনাকির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়