চট্টগ্রাম টেস্ট শুরু শুক্রবার, নতুন আশায় টাইগাররা

আগের সংবাদ

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে হোঁচট খেল টাইগ্রেসরা

পরের সংবাদ

মেরিনার্সকে হারিয়ে স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখল আবাহনী

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১০:০৭ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১০:০৭ অপরাহ্ণ

আবাহনীর বিপক্ষে বৃহস্পতিবার সুপার ফাইভের ম্যাচটি জিতলেই লিগ হকির চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেত মেরিনার্স ইয়াংস। অবশ্য ম্যাচের শেষ মিনিটে আকাশি-নীলদের নাটকীয় জয়ের আগেও ক্লাব হকির চ্যাম্পিয়নরা এগিয়ে ছিল ৩-২ গোল ব্যবধানে। তবে এক মিনিটেই ২ গোল করে মেরিনার্সকে হতাশায় ডুবিয়েছে আবাহনী। এ জয়ে সমান ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ হকির চ্যাম্পিয়নের দৌড়ে আছে আবাহনী-মেরিনার্স। অন্যদিকে ৩৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করা মোহামেডান মেরিনার্সের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে জিততে পারলে তারাও হবে শিরোপার ভাগিদার। ড্র বা জয়ে শিরোপা থাকবে ক্লাব কাপ চ্যাম্পিয়ন মেরিনার্সেরই।

এর আগে সুপার ফাইভের ম্যাচে বৃহস্পতিবার মেরিনার্সের বিপক্ষে আবাহনী শেষ মিনিটে পেনাল্টি কর্নার থেকে তৃতীয় গোল করলে ম্যাচে ৩-৩ সমতা আসে। এই স্কোর লাইন থাকলেও মেরিনার্স চ্যাম্পিয়ন হয়ে যেত। ম্যাচের শেষ ত্রিশ সেকেন্ডের মধ্যে আরো একটি পেনাল্টি কর্নার আদায় করে নেয় আকাশি-নীলরা। মেরিনার্স রিভিউ নিলেও শেষ পর্যন্ত পেনাল্টি কর্নারের সিদ্ধান্ত টেকে। আবাহনী যখন পেনাল্টি কর্নার নেয় তখন মাত্র দুই সেকেন্ড বাকি। সেই দুই সেকেন্ডের মধ্যে পেনাল্টি কর্নার থেকে খোরশেদ আবার গোল করলে মেরিনার্সের পরিবর্তে উল্লাসে মাতে আবাহনী।

আবাহনী বৃহস্পতিবার তাদের লিগের শেষ ম্যাচ খেলেছে। ১৫ ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট আবাহনীর, মেরিনার্সেরও পয়েন্ট ৩৯। তাদের হাতে আরো এক ম্যাচ রয়েছে। শেষ ম্যাচে মোহামেডানের সঙ্গে ড্র করলে তারা আবার শিরোপা জিতবে। মোহামেডানের একটি ম্যাচ এখন চলমান। এ ম্যাচে জিতলে মোহামেডানের হবে ৩৬। শেষ ম্যাচে মোহামেডান মেরিনার্সকে হারালে তিন দলেরই হবে সমান ৩৯ পয়েন্ট। সেক্ষেত্রে লিগ কমিটিকে জরুরি সভায় বসতে হবে লিগের শিরোপার ব্যাপারে।

সুপার ফাইভে মেরিনার্স আবাহনীর চেয়ে ৬ পয়েন্ট ও মোহামেডানের চেয়ে ৩ পয়েন্ট লিড নিয়ে শুরু করেছিল। সুপার ফাইভে আবাহনী মোহামেডান ম্যাচে আবাহনী জেতায় মেরিনার্সের শিরোপা পুনরুদ্ধারের পথ আরো মসৃণ হয়। আবাহনী আগের ম্যাচে মোহামেডানের সঙ্গে যে ছন্দ ছিল ম্যাচে তেমন ছন্দ দেখা যায়নি। আবাহনী মেরিনার্সকে অসংখ্য পেনাল্টি কর্নার দিয়েছে। সেই পেনাল্টি কর্নার থেকে মেরিনার কাজ লাগিয়েছে কয়েকটি। আবাহনীর ডাচ খেলোয়াড়রা ম্যাচে গোল করে ফেরানোর চেষ্টা করে প্রথম দিকে সফল না হলেও শেষ মুহূর্তে দুটি পেনাল্টি কর্নার আদায় করে তিনিও জয়ের অন্যতম নায়ক। ম্যাচে শুরুতে লিড নেয় আবাহনী। ডাচ কোলারম্যান ৮ মিনিটে পেনাল্টি স্ট্রোক থেকে গোল করেন। সোহানুর রহমান ১৫ মিনিটে ম্যাচে সমতা আনেন। দুই মিনিট পর সোহানের গোলে এবার লিড নেয় মেরিনার্স। ২৫ মিনিটে মরিসের ফিল্ড গোলে এবার সমতা আনে আবাহনী। দুই মিনিটের মধ্যে সোহানের গোলে আবার লিড মেরিনার্সের। ম্যাচের শেষ মিনিটে আবাহনীর হয়ে দুটি গোল করেন খোরশেদুর রহমান।

আর- এস / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়