১০০ বছর বাঁচতে যে চারটি খাবার খেতে হবে

আগের সংবাদ

নাক দিয়ে করোনার টিকা নিলেন পুতিন

পরের সংবাদ

ভাল্লুকের সঙ্গে যুবকের সেলফি, বাঁচল না কেউই

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ

মানুষের বেপরোয়া মনোভাবে প্রাণ গেল আরও এক বিপন্ন বন্যপ্রাণের। বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিকালে আলিপুরদুয়ারের মেটেলি চা বাগানে এক হিমালয়ান কালো ভাল্লুককে পিটিয়ে মারল স্থানীয়রা। তার আগে ভাল্লুকটির সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে প্রাণ যায় এক কিশোরের। এরপর প্রাণীটির ওপর আক্রমণ চালায় স্থানীয়রা। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

বুধবার বিকালে মেটেলি চা বাগানে ভাল্লুক ঢুকেছে বলে খবর ছড়ায়। চা বাগানে চিতাবাঘ, বাইসন, হাতি দেখা গেলেও ভাল্লুক তেমন একটা দেখা যায় না। ফলে ভাল্লুক দেখতে ভিড় করেন স্থানীয়রা। এর মধ্যে দীপেশ খালকো নামে এক যুবক ভাল্লুকের সঙ্গে সেলফি তুলতে যায়। তার ওপর আক্রমণ চালায় ভাল্লুক। তাকে তুলে নিয়ে জঙ্গলে চলে যায় প্রাণীটি। কিছুক্ষণের মধ্যে উদ্ধার হয় তার মুণ্ডহীন দেহ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বনদফতরের আধিকারিকরা। ততক্ষণে পাশেই একটি ঝোপে আশ্রয় নেয় ভাল্লুকটি। ফলে দীপেশের দেহ উদ্ধার করতে যেতে পারছিলেন না বনদফতরের কর্মীরা। এরই মধ্যে ভাল্লুকের ওপর আছড়ে পড়ে স্থানীয়দের ক্ষোভ। প্রাণীটিকে পিটিয়ে মারেন স্থানীয়রা। ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় পরিবেশপ্রেমীরা।

তাদের দাবি, পুলিশ ও বনদফতর তৎপর হলে এই ঘটনা এড়ানো যেত। ভারত ও ভুটানে হিমালয়ের পার্বত্য এলাকায় দেখা যায় এই কালো ভাল্লুক। বিপন্ন বন্যপ্রাণী হিসাবে নথিভুক্ত তারা। শীতে উঁচু এলাকা থেকে অপেক্ষাকৃত উষ্ণ নীচু এলাকায় নেমে আসে তারা।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়