মেরিনার্সকে হারিয়ে স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখল আবাহনী

আগের সংবাদ

ভর্তুকি দিলে অর্ধেক ভাড়ায় রাজি মালিকপক্ষ

পরের সংবাদ

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে হোঁচট খেল টাইগ্রেসরা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১০:১৬ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২১ , ১০:১৬ অপরাহ্ণ

বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের তৃতীয় ম্যাচে বৃহস্পতিবার থাইল্যান্ডের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে ১৬ রানে হেরেছে টাইগ্রেসরা। বাংলাদেশের বেঁধে দেয়া ১৭৭ রানের লক্ষ্য ব্যাট করতে নেমে থাই নারীরা ৩৯.২ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান সংগ্রহ করে। জয়ের জন্য তখন তাদের প্রয়োজন ছিল ৬৪ বলে ৪৫ রান। কিন্তু বৃষ্টি বাধায় ম্যাচ মাঠে না গড়ালে শেষ পর্যন্ত ফলাফল যায় থাইল্যান্ডের পক্ষেই। প্রতিপক্ষের দুই উইকেট শিকার করেন নাহিদা আক্তার ও ফাহিমা খাতুন। টাইগ্রেসদের পরবর্তী ম্যাচ ২৯ নভেম্বর স্বাগতিক জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

থাইল্যান্ডের বিপক্ষে পাওয়া গেল না সে চিরচেনা টাইগ্রেসদের। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচে নিগার সুলতানারা শক্তিশালী পাকিস্তানকে হারায় ৩ উইকেটের ব্যবধানে। দ্বিতীয় ম্যাচে যুক্তরাষ্ট্রকে হারায় ২৬৯ রানের বিশাল ব্যবধানে। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে এসে ব্যাট হাতে খুব একটা তেজ দেখা গেল না বাংলাদেশের ব্যাটে। জিম্বাবুয়ের হারারেতে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান তুলতে সক্ষম হয় নিগার সুলতানারা। ব্যাট হাতে ৮১ বলে ৫১ রানের ইনিংস খেলে দলকে লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন ফারজানা হক। ২৬ রানের বিনিময়ে ৫ উইকেট শিকার করে টাইগ্রেসদের বড় সংগ্রহের পথে বাধা ছিলেন নাত্তয়া বুচাথাম।

বৃহস্পতিবার থাইল্যান্ডের বিপক্ষে টস হেরে আগে ব্যাট করে টাইগ্রেসরা ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে যা ম্যাচ জিততে যথেষ্ট ছিল না

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে সুপার সিক্সে অনেকটা এগিয়ে বাংলাদেশ নারী দল। পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে ওই দুই ম্যাচে দুর্দান্ত ছিল টাইগ্রেসরা। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পারফরম্যান্সের সে ঝলক দেখা গেল না। যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে যেখানে নিগার সুলতানারা ৩২২ রান সংগ্রহ করেছিল। ওই ম্যাচে ১৩০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন শারমিন আক্তার। কিন্তু থাইল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র ১৭৬ রান তুলতে সক্ষম হয় টাইগ্রেস একাদশ। শারমিন আক্তার এদিন কোনো রকম রানের খাতা খুলে ফিরেছেন সাজঘরে। ৮ বলে ১ রান করে তিনি থাই স্পিনার বুচাথামের বলে বোল্ড আউট হন। তবে ওপেনিংয়ে এদিন দায়িত্ব নিয়ে খেলেন মুর্শিদা খাতুন। দ্বিতীয় উইকেটে নেমে তাকে সঙ্গ দিতে পারেননি অধিনায়ক নিগার সুলতানা।

১৮ বলে মাত্র ১ রান করে তিনি মাঠ ছাড়েন। ১৪ রানে ২ উইকেট শিকার করে টাইগ্রেস শিবিরে ভীতি ছড়ান থাই বোলাররা। এরপর অবশ্য মাঠে নেমে মুর্শিদার সঙ্গে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন ফারজানা হক। দেখেশুনে খেলে দুই টাইগ্রেস বাংলাদেশকে তৃতীয় উইকেট জুটিতে এনে দেন ৮৪ রান। মুর্শিদা ৮০ বলে ৪৬ রানের ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন। তার ইনিংসে ছিল পাঁচটি বাউন্ডারির মার। খুব কাছে গিয়ে মুর্শিদা ফিফটি তোলা থেকে বঞ্চিত হলেও বঞ্চিত হননি ফারজানা হক। ৮১ বলে তিনি খেলেন ৫১ রানের ইনিংস। এটি তার ক্যারিয়ারের সপ্তম ওয়ানডে ফিফটির মাইলফলক। তার ইনিংসে ছিল ৬টি বাউন্ডারির মার। এরপর রুমানা আহমেদ ২৭ ও লতা মন্ডল ২৯ রানের দায়িত্বশীল ইনিংস খেললেও বাকি ব্যাটসম্যানরা ব্যাটিংয়ে আলো ছড়াতে পারেননি।

ইনিংসে বাংলার মেয়েদের একাই ধসে দিয়েছেন থাই স্পিনার নাত্তয়া বুচাথাম। তিনি ৭ ওভার বল করে ২৬ রানের বিনিময়ে তুলে নেন ৫ উইকেট। এর মধ্য আবার দুই ওভার মেইডেন তুলে নেন। বাকি তিন উইকেট শিকার করেন চানিদা সাত্থিরুয়াং, ওনিচা কামচম্পু ও সর্নারিন টিপোচ। তাতেই ১৭৬ রানে থামে বাংলাদেশের ইনিংস।

আর- এস / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়