বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী মাস্তানদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ সিইসির

আগের সংবাদ

স্বামীকে নিয়ে ওমরাহ করতে যাচ্ছেন মাহি

পরের সংবাদ

হাফ ভাড়া নিয়ে ছাত্রী হয়রানি, বাস আটকালেন জাবি শিক্ষার্থীরা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২১ , ৬:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২১ , ৬:১৯ অপরাহ্ণ

হাফ ভাড়া নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে এক ছাত্রীকে হয়রানির প্রতিবাদে ‘ইতিহাস’ পরিবহনের কয়েকটি বাস আটকে দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বুধবার (২৪ নভেম্বর) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা (প্রান্তিক) ফটকের সামনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে ‘ইতিহাস’ পরিবহনের বাস আটক করা শুরু করে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

এ সময় অন্তত ১০টি বাস আটক করেছেন শিক্ষার্থীরা। তারা অভিযুক্ত বাসের চালক ও তার সহযোগীকে শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান। পাশাপাশি এ ধরনের ঘটনা পুরোপুরি বন্ধেরও দাবি জানিয়েছেন তারা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আটকে রাখা বাস। ছবি : ভোরের কাগজ

বাস আটকানোর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ রফিক-জব্বার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সোহেল আহমেদ। তার সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি ও নিরাপত্তা শাখার সদস্যরাও ছিলেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান ও আশুলিয়া থানা পুলিশের সদস্যরাও ঘটনাস্থলে আসেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করে সমাধানের আশ্বাস দেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতিনিধিরা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও প্রক্টরিয়াল টিমের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন ‘ইতিহাস’ ও ‘ঠিকানা’ বাসের মালিকপক্ষ। ছবি : ভোরের কাগজ

বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও প্রক্টরিয়াল টিমের সঙ্গে বৈঠকে বসে ‘ইতিহাস’ ও ‘ঠিকানা’ বাসের মালিক পক্ষ। এ বৈঠকে বাস মালিকদের পক্ষ থেকে ক্ষমা চাওয়া হয়। বৈঠকের সিদ্বান্ত অনুযায়ী এখন থেকে শিক্ষার্থীরা আইডি কার্ড দেখালে হাফ ভাড়া নেয়া হবে এবং শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বাসচালক বা হেলপার কর্তৃক বলপূর্বক আচরণ বা হেনস্তার শিকার হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, গত মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় যাওয়ার জন্য ‘ইতিহাস’ পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন তিন ছাত্রী। শিক্ষার্থী হিসেবে হাফ ভাড়া দিতে চাইলে চালকের সহযোগীর সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয় ওই তিন ছাত্রীর। পরে মিরপুর-১০ এলাকায় আসার পর বাসের অন্যান্য যাত্রীদের সঙ্গে দুই ছাত্রী নেমে যান। আরেকজন মিরপুর-১৪ এলাকায় যাওয়ার জন্য বাসেই ছিলেন। তখন ওই ছাত্রীর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা শুরু করেন বাসের চালক ও তার সহযোগী।

হয়রানির শিকার ওই ছাত্রীর ভাষ্য, বাসে তিনি একাই ছিলেন। তখন চালক ও সহযোগীরা বাসের গেটলক করে তার সঙ্গে যা-তা আচরণ করেছে। নেমে যেতে চাইলে তারা বাধা দেয়। খুব অস্বস্তিতে ভুগেছেন তিনি।

আর- এনএইচএন / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়