লক্ষ্মীপুর চুরি হওয়া স্বর্ণালংকার মানিকগঞ্জ থেকে উদ্ধার

আগের সংবাদ

সন্ত্রাসী রাষ্ট্রের নাম ধারণ করেছে পাকিস্তান

পরের সংবাদ

কাটাখালীর বিতর্কিত পৌর মেয়রকে আওয়ামী লীগ থেকে অব্যাহতির সুপারিশ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২১ , ৮:৩১ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২১ , ৮:৩১ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণ নিয়ে বিতর্কিত অডিও ফাঁসের ঘটনায় কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের জরুরি বৈঠকে মেয়র আব্বাসের বিষয়ে এ ধরনের সিদ্ধান্ত আসে। সভায় সভাপতিত্ব করেন পবা উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী।

ইয়াসিন আলী বলেন, সভায় আব্বাস আলীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে কেন দলীয় সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে তাকে বহিষ্কার করা হবে না, তা জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিস দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ-সংক্রান্ত চিঠি আব্বাস আলীকে দেয়া হবে। এই চিঠির জবাব দেওয়ার জন্য আব্বাস আলীকে তিন দিন সময় দেওয়া হয়েছে। এই জবাব সন্তোষজনক না হলে জেলা আওয়ামী লীগের মাধ্যমে কেন্দ্রে বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ করা হবে। আমরা শুধু অব্যাহতি দিতে পারি এবং কারণ দর্শানোর নোটিশ দিতে পারি। কেন্দ্র এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

এর আগে, বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নগরের গণকপাড়া থেকে বিক্ষোভ মিছিল শেষে সাহেববাজার এলাকায় সমাবেশ করেন তারা। এরপরই পোড়ানো হয় আব্বাস আলীর কুশপুত্তলিকা।

সমাবেশে সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুজ্জামান বলেন, বুধবার থেকে রাজশাহী মহানগর এলাকায় মেয়র আব্বাস আলীকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হলো। শুধু অবাঞ্ছিত নয়, তাকে যেখানে পাওয়া যাবে, গণধোলাই দেয়া হবে। তিনি জেলা আওয়ামী লীগকে আব্বাস আলী বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়ার আহ্বান জানান।

রাজশাহী সিটি গেটে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল না বসানোর নির্দেশনা দেয়া মেয়রের কণ্ঠের একটি অডিও ভোরের কাগজের হাতে এসেছে। তবে ওই অডিও আব্বাস আলীর নয় দাবি করে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি।

অডিও ক্লিপে বলতে শোনা যায়, সিটি গেট আমার অংশে। একটু চেঞ্জ করতে হচ্ছে, যে মুর‌্যালটা দিয়েছে বঙ্গবন্ধুর সেটা ইসলামি শরীয়ত মতে সঠিক নয়। এজন্য আমি ওটা থুব (রাখবো) না, সব করবো তবে শেষ মাথাতে যেটা ওটা (মুর‌্যাল)। আমি দেখতে পাচ্ছি আমাকে যেভাবে বুঝাইছে আমি দেখতে পাচ্ছি যে মুর‌্যালটা ঠিক হবে না। দিলে আমার পাপ হবে, তো কেন দিব? দিব না। আমিতো কানা না, যেভাবে বুঝাইছে তাতে আমার মনে হয়েছে মুর‌্যালটা হলে আমার ভুল করা হবে। এ খবরটা যদি যায় তাহলে আমার রাজনীতির বারোটা বাজবে, এই মুর‌্যাল দিত চেয়ে দিছে না। তাহলে বঙ্গবন্ধুকে খুশি করতে গিয়ে আল্লাহকে নারাজ করবো নাকি। এজন্য কিছু করার নাই। মানুষকে সন্তুষ্ট করতে গিয়ে আল্লাহকে অসন্তুষ্ট করা যাবে না।

এ বিষয়ে কাটাখালি পৌর মেয়র আব্বাস আলী বলেন, এ ধরনের কোনো কথা আমি বলিনি। অডিও ক্লিপটি আমার নয়।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার বলেন, কেউ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করলে আওয়ামী লীগ করার অধিকার তার থাকে না। কাটাখালির মেয়র বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যদি কোনো কটুক্তি করে থাকে, তাহলে তার বিরুদ্ধে দলীয় ও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়