নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

বান্দারবানে বাড়িতে ঢুকে আ.লীগ কর্মীকে গুলি করে হত্যা

পরের সংবাদ

মধ্যপাড়া খনির ২০২০-২১ অর্থবছরের মুনাফা ৩৩ কোটি টাকা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২১ , ৮:৫৭ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৩, ২০২১ , ৮:৫৭ অপরাহ্ণ

পার্বতীপুরের মধ্যপাড়া পাথর খনি ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ৩৩ কোটি টাকা মুনাফা করেছে। গত ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত খনি পরিচালনা পর্ষদের বার্ষিক সাধারণ সভায় এ লভ্যাংশ ঘোষণা করা হয়। খনির ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জিটিসি পূর্ণমাত্রায় পাথর উৎপাদন করায় পর পর তিন বছর ধরে লাভের ধারা অব্যাহত রাখা সম্ভব হয়েছে।

জানা গেছে, ২০০৭ সালের ২৫ মে মধ্যপাড়া কঠিন শিলা খনি বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনে যায়। উৎপাদন শুরুর পর থেকে নানা প্রতিকূলতার কারণে ২০১৩ সালের জুন পর্যন্ত ৬ বছরে খনিটি লোকসান দিয়েছে প্রায় শত কোটি টাকা। এ অবস্থায় ২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারী ৬ বছরের জন্য খনির উৎপাদন ও রক্ষনাবেক্ষণের দায়িত্ব দেওয়া হয় বেলারুশের জেএসসি ট্রেস্ট সকটোস্ট্রয় ও দেশীয় একমাত্র মাইনিং কাজে অভিজ্ঞ প্রতিষ্টান জার্মানিয়া করপোরেশন লিমিটেড নিয়ে গঠিত জার্মানিয়া ট্রেস্ট কনসোর্টিয়ামকে (জিটিসি)।

জিটিসি তিন শিফট চালু করে প্রতিদিন গড়ে ৫ হাজার মেট্রিক টন পাথর উৎপাদনে নয়া রেকর্ড গড়ার মাধ্যমে মধ্যপাড়া খনিকে লোকসানের কবল থেকে উদ্ধার করে প্রথম বারের মত লাভের মুখ দেখায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরে। খনিটি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৭ কোটি ২৬ লাখ টাকা ও ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২২ কোটি টাকা মুনাফা করে। জিটিসির প্রথমদফা চুক্তির মেয়াদ শেষ হয় গত ২ সেপ্টেম্বর।

সূত্র জানায়, জিটিসি দ্বিতীয়দফা চুক্তির আওতায় ৩ সেপ্টেম্বর থেকে পাথর উত্তোলন করছে। নতুন চুক্তি অনুযায়ী ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ৬ বছরে প্রায় ১ হাজার ২৮০ কোটি টাকার বিনিময়ে ৮৮ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিক টন পাথর উত্তোলন করে দিবে।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান খনি পরিচালনার পাশাপশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি খনির প্রধান গেটের সামনে ‘চ্যারিটি হোম’ নামে একটি দাতব্য সংস্থা স্থাপন করে অভিজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা বিনামুল্যে চিকিৎসা পরামর্শ সেবা দিয়ে যাচ্ছে। খনি শ্রমিকদের উচ্চ শিক্ষায় অধ্যায়নরত সন্তানদের প্রতিমাসে বৃত্তিও প্রদান করছে।

রি-এমআরবি/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়