জন্মদিনে হবু বরের ছবি প্রকাশ করে সারপ্রাইজ দিলেন মিম

আগের সংবাদ

ফেনীতে জামায়াতের ৮ নারী নেত্রী কারাগারে

পরের সংবাদ

চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া করোনার মুখে খাওয়ার ওষুধ সেবন নয়

প্রকাশিত: নভেম্বর ১০, ২০২১ , ১০:২৮ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১০, ২০২১ , ১০:২৮ অপরাহ্ণ

চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ‘মলনুপিরাভির’ ব্যবহার না করার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র ও লাইন ডিরেক্টর (অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাপক ডা. রোবেদ আমিন। বুধবার (১০ নভেম্বর) দুপুরে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আয়োজিত ভার্চুয়াল স্বাস্থ্য বুলেটিনে বক্তব্য দেয়ার সময়ে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি জানান, ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য মুখে খাওয়ার ওষুধ ইমার্জেন্সি ইউজ অথরাইজেশন (ইইউই) দিয়েছে। ওষুধটি ব্যবহারের ব্যাপারে ন্যাশনাল গাইডলাইন কমিটি বৈঠক করে সঠিক নির্দেশনা প্রদান করবে। এর আগে, নতুন ওষুধটি (এন্টিভাইরাল) চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কেউ যেন ব্যবহার না করেন কিংবা কোথাও যেন বিক্রি না হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে।

এর আগে, করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য মুখে খাওয়ার ক্যাপসুল ‘মলনুপিরাভির’ উৎপাদনের অনুমোদন দেয় ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর। বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস এবং এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস মলনুপিরাভির উৎপাদনে ইমার্জেন্সি ইউজ অথরাইজেশন বা ইইউএ পেয়েছে। আরও ৭টি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ইইউএ প্রদান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সাত প্রতিষ্ঠান হলো- ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস, রেনাটা, জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যালস, ওরিয়ন ফার্মাসিউটিক্যালস, একমি ল্যাবরেটরিজ, রেডিয়েন্ট ফার্মা এবং হেলথকেয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, সোমবার (৮ নভেম্বর) মলনুপিরাভির (আইএনএন২০০ এমজি) এর মার্কেটিং অথরাইজেশন বেক্সিমকোর অনুকূলে ইইউএ প্রদান করা হয়। আর মঙ্গলবার স্কয়ার এবং মেসার্স এসকেএফ’কে ইইউএ প্রদান করা হয়েছে। আরও সাতটি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ইইউএ’র প্রাথমিক প্রক্রিয়া (রেসিপি) সম্পন্ন হয়েছে।

গত ৪ নভেম্বর যুক্তরাজ্যের ড্রাগ রেগুলেটরি অথরিটি (এমএইচআরএ) বহুজাতিক কোম্পানি মার্ক কর্তৃক উদ্ভাবিত মলনুপিরাভির (আইএনএন২০০ এমজি) ক্যাপসুল ডোজেজ ফর্মে অনুমোদন দিয়েছে। এটি করোনার মাইল্ড অ্যান্ড মডারেট রোগের চিকিৎসায় কার্যকর ওষুধ হিসেবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে প্রমাণিত হওয়ায় এমএইচআরএ অনুমোদন দিয়েছে। ওষুধটি ৮০০ মিলিগ্রাম করে দিনে দুইবার পাঁচদিন সেবন করতে হবে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়