টস জিতে বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

ফেসবুকে নিষিদ্ধ তসলিমা নাসরিন!

প্রকাশিত: নভেম্বর ১, ২০২১ , ৮:১২ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১, ২০২১ , ৮:১২ অপরাহ্ণ

হিন্দু সম্প্রদায়ের হয়ে সুর চড়ানোর কারণেই ফেসবুক থেকে সাতদিনের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে তাকে। এমনই অভিযোগ করলেন তসলিমা নাসরিন। তার অভিযোগ, সত্যি কথা বলার জন্যই তাকে নিষিদ্ধ করা হল এই সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম থেকে। এই নিয়ে তিনি টুইট করে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

একটি টুইট করে তসলিমা নাসরিন লেখেন, ‘সত্যি বলার অপরাধে ফেসবুক আমাকে আবারও ৭ দিনের জন্য নিষিদ্ধ করেছে। ‘পরে অপর একটি টুইটে বিস্তারিত ভাবে তিনি লেখেন, ‘ফেসবুক আমাকে নিষিদ্ধ করেছে এটা লেখার জন্য – ইসলামবাদীরা বাংলাদেশী হিন্দুদের ঘরবাড়ি ও মন্দির ধ্বংস করেছে এই বিশ্বাস করে যে হিন্দুরা হনুমানের উরুর উপর কোরআন রেখেছে। কিন্তু যখন জানা গেল ইকবাল হোসেন সেটা করেছেন, হিন্দুরা নয়, ইসলামপন্থীরা চুপ হয়ে গিয়েছে। তারা ইকবালের বিরুদ্ধে কিছু বলেনি বা কিছু করেনি…’

তসলিমা নাসরিনকে এর আগেও নিষিদ্ধ করেছিল ফেসবুক। এ বছরের ১৬ মার্চে এ লেখিকা অভিযোগ করেন, ফেসবুক তাকে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধ করেছে। তারও আগে ২০১৫ সালে মার্কিন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম জায়ান্ট তসলিমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিষ্ক্রিয় করে দেয়।

ফেসবুকের নিয়ম অনুযায়ী, কেউ যদি তাদের ‘বিদ্বেষমূলক বক্তব্য’ নীতি লঙ্ঘন করে, তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট নিষিদ্ধ অর্থাৎ ব্যান করে দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে ফেসবুকের নীতিতে বলা হয়েছে, ‘আমরা বিদ্বেষমূলক যেকোনো বক্তব্য মানুষের বিরুদ্ধে সরাসরি আক্রমণ হিসেবে বিবেচনা করি।’ জাতি, জাতিসত্তা, বংশপরিচয়, শারীরিক অক্ষমতা, ধর্মীয় পরিচয়, বর্ণ, লিঙ্গ, লিঙ্গ পরিচয় ও গুরুতর রোগ নিয়ে বিদ্বেষমূলক মন্তব্য বিবেচনায় নিয়ে অ্যাকাউন্ট বন্ধ বা নিষিদ্ধ হয়।

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়