নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

ভরাট দখলে বংশী এখন মরা গাঙ

পরের সংবাদ

বিশ্ব স্ট্রোক দিবস পালিত

স্ট্রোক আক্রান্ত গরিব রোগিদের জন্য নিনসে’র বিনামূল্যে সেবা

প্রকাশিত: অক্টোবর ৩০, ২০২১ , ৮:১৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০২১ , ৮:১৪ অপরাহ্ণ

স্ট্রোক আক্রান্ত গরিব রোগিদের জন্য রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সস (নিনস) হাসপাতালে বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা রয়েছে। স্ট্রোকের সাড়ে ৪ ঘণ্টার মধ্যে ওই হাসপাতালে রোগিকে নেয়া হলে অত্যাধুনিক আইভি থ্রোম্বলাইসিস করাও সম্ভব হবে। বিশ্ব স্ট্রোক দিবস উপলক্ষে শনিবার (৩০ অক্টোবর) নিনসে আয়োজিত এক সেমিনারে এসব কথা জানানো হয়। ঘাতক এ ব্যাধি সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে এর আগে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।

বিশেষজ্ঞরা জানান, স্ট্রোক একটি ঘাতক ব্যাধি। বিশ্বে প্রতি বছর প্রায় দেড় কোটি মানুষ এ রোগে আক্রান্ত হন। এর মধ্যে ৫০ লাখ মানুষ মৃত্যু বরণ করেন। আর প্রায় ৫০ লাখ মানুষ পঙ্গু হন। বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর দ্বিতীয় কারণ এটি। দেশেও স্ট্রোক আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। বাংলাদেশে প্রতি ১ হাজারে ১২ জন স্ট্রোকে আক্রান্ত হচ্ছেন। ঘাতক এ ব্যাধি থেকে বাঁচতে সচেতনতার বিকল্প নেই বলে জানান তারা।

দেশে নিউরোলজির চিকিৎসায় নেতৃত্বদানকারী ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সস হাসপতালে দিনটি নানা আয়োজনে পালিত হয়। সোসাইটি অব নিউরোলজিস্ট অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশন এসব অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সকাল ৮ টায় বর্ণাঢ্য র‌্যালির মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। র‌্যালিতে চিকিৎসকদের পাশাপাশি রোগির স্বজনরাও অংশ নেন। সকাল ১১ টায় আয়োজন করা হয় সেমিনার। এতে চেয়ারপার্সন হিসেবে ছিলেন প্রখ্যাত নিউরোলজিস্ট অধ্যাপক কাজী দীন মোহাম্মদ। প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ফিরোজ আহম্মেদ কোরাইশি এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউরোসায়েন্সস হাসপাতালের যুগ্ম- পরিচালক অধ্যাপক বদরুল আলম মণ্ডল ও আবু নাসার রিজভী। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন ডা. খাইরুল কবির পাটোয়ারি, ডা. শিরাজী শফিকুল ইসলাম ও ডা. এ টি এম হাছিবুল হাসান।

আলোচকরা জানান, স্ট্রোকের চিকিৎসা যত দ্রুত করা সম্ভব তত ফলাফল ভালো হয়। এর চিকিৎসায় দেরি করলে উন্নতি হওয়ার সম্ভবনা কমে যায়। তাই যদি কারো মুখ বেঁকে যায়, এক হাত অবশ হয়ে যায়, কথা জড়িয়ে যায় তাহলে তাকে দ্রুত হাসপাতালে নিতে হবে। সাড়ে চার ঘন্টার মধ্যে নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে অত্যাধুনিক আইভি থ্রোমম্বলাইসিস করা সম্ভব। স্ট্রোক প্রতিরোধে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা, ধূমপান না করা ও নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপন করা জরুরি বলে জানান তারা।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক কাজী মহিবুর রহমান বলেন, স্ট্রোকের আধুনিক সব চিকিৎসা নিনসে হচ্ছে। এর অত্যাধুনিক চিকিৎসা মেকানিক্যাল থোম্বেক্টমি আগামী বছর থেকে দেশে প্রথমবারের মত শুরু হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। বাংলাদেশ সোসাইটি অব স্ট্রোক ও নিউরোইন্টারভেনশনের সভাপতি অধ্যাপক শরীফ উদ্দিন খান বলেন, বাংলাদেশে সরকারিভাবে একমাত্র নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিয়মিতভাবে আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা হচ্ছে। শুধু তাই নয় এ হাসপাতালের ইন্টারভেনশনাল নিউরোলজি বিভাগে স্ট্রোকের অত্যাধুনিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

অধ্যাপক বদরুল আলম মণ্ডল বলেন, এ হাসপাতালে শতাধিক আইভি থ্রোম্বলাইসিস করা হয়েছে এবং রোগিরা সুস্থ আছে। গরীব রোগিদের এই অত্যাধুনিক চিকিৎসা বিনামূল্যে দিচ্ছে নিনস। এছাড়া উপজেলার চিকিৎসক ও নার্সদেও স্ট্রোকের চিকিৎসার প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। তরুণদের মধ্যে স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার হার বাড়ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা প্রতিরোধ করার এখনই চেষ্টা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক মালিহা হাকিম, অধ্যাপক জাহেদ হোসেন, অধ্যাপক খুরশীদ মাহমুদ, অধ্যাপক রাজিব নারায়ন চৌধুরী, অধ্যাপক জহিরুল হক চৌধুরী, ডা. সুভাষ কান্তি দে প্রমুখ।

রি-আরএ/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়