ফেরি ডুবির ঘটনায় ক্ষতিপূরণের দাবিতে যানবাহন মালিকদের মানববন্ধন

আগের সংবাদ

ধারণার বাইরে বাড়ছে সাইবার ক্রাইম: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পরের সংবাদ

কোটি টাকায় বিক্রি হচ্ছে উইঘুর মুসলিম বন্দিদের অঙ্গ

প্রকাশিত: অক্টোবর ৩০, ২০২১ , ৩:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৩০, ২০২১ , ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

চোরাকারবারে সুস্থ লিভারের বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় এক কোটি টাকা। এর অপেক্ষাকৃত কম দামে পাওয়া যাবে ভালো মানের কিডনি। সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক চোরাকারবারে বিক্রি হওয়া এসব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের বড় অংশের মালিক চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের বন্দিশিবিরে আটককৃত উইঘুর মুসলিমদের।

জিনজিয়াং প্রদেশের বাসিন্দাদের মধ্যে উইঘুর মুসলিম ছাড়াও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী তিব্বতি ও ফালুন গোষ্ঠীর বন্দিদের কাছ থেকেও জোরপূর্বক অঙ্গ সংগ্রহ করা হচ্ছে বলে ওই প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়। বলা হয়েছে, চীনের কমিউনিস্ট পার্টি সরকার বেআইনীভাবে বছরে অন্তত সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকার অঙ্গপ্রত্যঙ্গের ব্যবসা চালাচ্ছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

২০২১ সালের প্রথম দিকে একাধিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা চীন সরকারের বিরুদ্ধে উইঘুর, তিব্বতি এবং ফালুন বন্দিদের অঙ্গহানি করে বিক্রির অভিযোগ তুলেছিল। বিশেষ করে জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশন বিষয়টি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

চীনের বিভিন্ন বন্দিশিবিরে আনুমানিক ২০ লাখ তুর্কিভাষী উইঘুর মুসলিমকে বন্দি করে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের। যৌনাঙ্গে ইলেকট্রিক শক, নিষিদ্ধ ওষুধ প্রয়োগসহ বন্দিদের ওপর নানা অত্যাচার করা হয়েছে। নারীবন্দিদের ধর্ষণের অভিযোগও এর মধ্যে আছে।

১৯৪০-এর দশকে স্বাধীন রাষ্ট্র পূর্ব তুর্কিস্তান দখল করে জিনজিয়াং প্রদেশ নাম দেয় চীন। এরপর থেকে সেখানকার বাসিন্দা উইঘুর মুসলিমদের একটি অংশ চীনা দখলদারির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ শুরু করে। ২০১৪ সালে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলার পর থেকে ‘সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের’ নামে ওই প্রদেশে ক্যাম্প স্থাপন করে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়