সিরাজগঞ্জে পুলিশ-যুবদল সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ৩৫

আগের সংবাদ

অলরাউন্ডার র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে আবারও সাকিব

পরের সংবাদ

সতর্ক পেন্টাগন

ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে হামলা করতে পারে আইএস!

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৭, ২০২১ , ৫:২৫ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৭, ২০২১ , ৫:২৫ অপরাহ্ণ

আফগানিস্তান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ কমে আসছে না এখনই। সে কারণে দেশটির কংগ্রেসকে সতর্কবার্তা দিয়েছে পেন্টাগন। জানিয়েছে, আগামী ছয় মাসের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে বড় ধরনের হামলা চালাতে পারে খোরাসানের জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস-কে। খবর ইউএস নিউজ ও আনন্দবাজার পত্রিকার

এর আগে ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর জোড়া বিমান হামলায় আক্রান্ত হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার। হামলার পরিকল্পনাকারী হিসেবে আল-কায়েদা প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেনকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে সোপর্দ করার দাবি করা হলেও সে সময়ের তালেবান সরকার সেটি অস্বীকার করে। ফলশ্রুতিতে দীর্ঘ ২০ বছর আফগানিস্তানে আগ্রাসন চালায় যুক্তরাষ্ট্র।

জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির এক গবেষণায় বলা হয়, আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যয় হয়েছে এক হাজার কোটি ডলার। কিন্তু এত ব্যয়ের পরেও তালেবানদের সঙ্গে ২০২০ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি যুদ্ধবিরতির চুক্তিতে বাধ্য হয় যুক্তরাষ্ট্র। চলতি বছরের আগস্টে তালেবান কাবুলের শাসনভার গ্রহণ করে এবং ৩১ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ সৈন্য প্রত্যাহারের পর সরকার গঠন করে। প্রশ্ন উঠছে, যে উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে আগ্রাসন চালিয়েছে, সেই উদ্দেশ্য সফল হয়েছে?

যখনই যুক্তরাষ্ট্র এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজছিল, ঠিক সে মুহূর্তেই আফগানিস্তানের আইএস-কে হামলা চালাতে এমন সতর্কবার্তা পেল দেশটি। পেন্টাগন সূত্রে জানা গেছে, তালেবান শাসিত আফগানিস্তানে ইদানীং এলাকা গোছাচ্ছে আইএস-কে। অন্যদিকে আল-কায়েদাও নতুন করে দলবদ্ধ হওয়া শুরু করেছে। তালেবানের সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ হল আফগানিস্তানে সন্ত্রাস ও উগ্রপন্থা দূর করা। কেননা কাবুল দখলের আগে থেকে এখন পর্যন্ত তালেবান নেতারা বলে এসেছেন, আফগানিস্তানে কোনো সন্ত্রাসীকে সহ্য করা হবে না।

পেন্টাগন জানিয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে তালেবানের প্রশাসনিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে ইসলামিক স্টেটস- খোরাসান (আইএস-কে) আফগানিস্তানের ভূমি ব্যবহার করে অন্য কোনো দেশে হামলা চালাবে না- তার কোনো নিশ্চয়তা যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবান সরকার কারও কাছেই নেই। তা ছাড়া আল-কায়েদার নতুন করে দলবদ্ধ হওয়ার বিষয়টি নিয়েও উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র।

গত ৩১ আগস্ট আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ সৈন্য প্রত্যাহারের পর এখন পর্যন্ত দেশটি নিয়ে আতঙ্ক কাটছে না।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়