প্রযোজক রাজের বিরুদ্ধে চার্জশিট শুনানি ২৫ অক্টোবর

আগের সংবাদ

দলে ফিরেই নাঈমের দুর্দান্ত ফিফটি

পরের সংবাদ

তারল্য বাড়াতে মধ্যস্থতাকারীদের বন্ড ইস্যুর সুযোগ

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৯, ২০২১ , ৯:২৫ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৯, ২০২১ , ৯:২৫ অপরাহ্ণ

শেয়ারবাজারে তারল্য বা নগদ অর্থের প্রবাহ বাড়াতে ব্রোকার হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকারদের বন্ড ইস্যুর (ডেবট সিকিউরিজি) সুযোগ দেয়াসহ ৪ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) শেয়ারবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে এক জরুরী বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন।

সভায় বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে শীর্ষ ব্রোকার ও মার্চেন্ট ব্যাংকের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহন করেন।

বৈঠকের বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, শেয়ারবাজারে তারল্য বাড়ানোর জন্য ৪টি বিষয় আলোচনা হয়েছে। এরমধ্যে একটি হচ্ছে ব্রোকার হাউজ ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোকে ডেবট সিকিউরিটিজ (বন্ড) ইস্যুর সুযোগ দেওয়া হবে। যা প্রতিষ্ঠানগুলো সরাসরি বিনিয়োগ করতে পারবে এবং গ্রাহকদের মার্জিন ঋণ দিতে পারবে।

এছাড়া ক্যাপিটাল মার্কেট স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের টাকা দ্রুত বিনিয়োগ করা নিয়েও সভায় আলোচনা হয়েছে বলে জানান বিএসইসির এই নির্বাহী পরিচালক। তিনি বলেন, দ্রুত বিনিয়োগসহ মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠানের ডেবট সিকিউরিটিজে স্ট্যাবিলাইজেশন ফান্ডের অর্থ কিভাবে আবেদন করা যায়, সে বিষয়ে কমিশন দ্রুত সিদ্ধান্ত নেবে।

রেজাউল করিম বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ বিনিয়োগকারীদের ৯০০ কোটি টাকার ৫ বছর মেয়াদি ব্যবহারের সুযোগ দিয়েছে সরকার। এরমধ্যে কিছুটা অর্থ ব্যবহার করা হয়েছে। বাকি অর্থ কিভাবে দ্রুত বিনিয়োগে আনা যায়, তা নিয়ে কাজ করা হবে।

তিনি বলেন, ব্যাংকগুলোর ২০০ কোটি টাকার বিশেষ তহবিলের বিনিয়োগ ও অনেক ব্যাংকের বিনিয়োগ সীমার কম বিনিয়োগ নিয়ে আজ আলোচনা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যাংকগুলোকে কিভাবে বিনিয়োগে আনা যায়, তা নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে আগামি সমন্বয় মিটিংয়ে আলোচনা করা উদ্যোগ নেওয়া হবে।

শেয়ারবাজারে গত কয়েকদিনের পতনে আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু ঘটেনি বলে সভায় উপস্থিত সবাই একমত প্রকাশ করেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। মুনাফা গ্রহনের কারনে এমনটি হয়েছে। যাতে করে আগামিতে শেয়ারবাজার ঘুরে দাড়াবে বলে সবাই আশা ব্যক্ত করেছেন।

উল্লেখ্য, টানা সাত কার্যদিবস ধরে পতনে রয়েছে শেয়ারবাজার। এই সাত কার্যদিবসে ৩৪৭ পয়েন্ট সূচক কমেছে। এতেই শেয়ারবাজারে বিভিন্ন ধরনের গুজবের ডালপালা মেলতে শুরু করেছে। এই পরিস্থিতিতে পতনের কারনসহ তারল্য বাড়ানোর লক্ষ্যে আজ মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসে কমিশন।

রি-এমএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়