বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে ভারতীয় তারকাদের খোলা চিঠি

আগের সংবাদ

লন্ডন দূতাবাসের সামনে আমরণ অনশন (ভিডিও)

পরের সংবাদ

গোবিন্দগঞ্জে দোকানে আগুন, মালিকের দাবি নাশকতা

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৯, ২০২১ , ৫:৩৫ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৯, ২০২১ , ৬:২৬ অপরাহ্ণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় এক হিন্দু ব্যবসায়ীর কাপড়ের দোকানে আগুনে নগদ টাকা, কাপড়সহ দুইটি দোকানের ৫০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল পুড়ে গেছে। ওই ব্যাবসায়ীর দাবি, এটি নাশকতা। তবে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট বা কয়েলের আগুন থেকে এর সুত্রপাত হতে পারে।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) ভোররাতে উপজেলার কামদিয়া বাজারে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস কার্যালয়, পুলিশ ও প্রত্যদর্শীরা জানায়, স্থানীয় লোকজন ভোর পাঁচটার দিকে কামদিয়া বাজারের রমেশ চন্দ্র দাশের কাপড়ের দোকানে ধোয়া বের হতে দেখে। তারা গোবিন্দগঞ্জ ও ঘোড়াঘাট ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে আসার আগেই আগুন পুরো দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। এতে পাশের বিপ্লব আকন্দের কাপড়ের দোকানেও আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তার দোকানেরও আংশিক ক্ষতি হয়েছে। পরে ফায়ার সার্ভিসের গোবিন্দগঞ্জ ও ঘোড়াঘাট ইউনিটের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে দুই দোকানের নগদ টাকা, কাপড়সহ ৫০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।

দোকান মালিক রমেশ চন্দ্র দাশ কামদিয়া ইউনিয়ন পুজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক ইস্যুকে কেন্দ্র করে শক্রতাবশত তার দোকানে আগুন দেয়া হতে পারে। আগুনে তার দোকানের সবকিছু পুড়ে গেছে।

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের পরিদর্শক আরিফ আনোয়ার বলেন, বিষয়টি স্পর্শকাতর। তদন্ত ছাড়া কিছু বলা যাচ্ছে না।

ঘটনাটি ঘোড়াঘাট ফায়ার সার্ভিসও তদন্ত করছে। এখানবার পরিদর্শক নিরঞ্জন সরকার মুঠোফোনে বলেন, ফায়ার সার্ভিসের দিনাজপুর ও ঢাকার উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা তদন্ত করবেন। এর আগে কিছু বলা যাচ্ছে না।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। বৈদ্যুতিক সর্ট সার্কিট বা কয়েলের আগুন থেকে আগুনের সুত্রপাত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুজা উদযাপন কমিটির নেতারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে জেলা পুজা উদযাপন কমিটির সভাপতি রনজিত বকসি বলেন, এটা নাশকতা। পিছন দিয়ে দোকানে আগুন লাগানো হয়েছে। তারা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও তাদেরকে গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়