প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখালো উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী: রানা দাশগুপ্ত

আগের সংবাদ

ফাইন্যান্সিয়াল লিটারেসি : আর্থিক প্রতারণা থেকে সুরক্ষার জন্য প্রয়োজন

পরের সংবাদ

কলকাতাকে হারিয়ে চতুর্থ শিরোপা ঘরে তুলল চেন্নাই

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৬, ২০২১ , ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৬, ২০২১ , ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ

আইপিএলের ফাইনালে শুক্রবার কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ২৭ রানে হারিয়ে আসরের চতুর্থ শিরোপা ঘরে তুলেছে মাহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। শুক্রবার টস জিতে দুবাইয়ে ফিল্ডিং নেয় কলকাতার অধিনায়ক ইয়ান মরগান। প্রথম ওভারে বল করেন সাকিব। চতুর্থ বলে ডিপ স্কয়ার লেগ দিয়ে ইনিংসের প্রথম চার মারেন রুতুরাজ। ওই ওভারে ৬ রান দেন বাঁহাতি স্পিনার। সাকিবের দ্বিতীয় ওভারে টানা দুটি চার ও ছক্কা মারেন চেন্নাই ওপেনার। ওভারটিতে চেন্নাই করে ১৩ রান। ডু প্লেসির সঙ্গে রুতুরাজের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে পাওয়ার প্লের ৬ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫০ রান করে দলটি। নবম ওভারের প্রথম বলে সুনীল নারিন ৬১ রানের জুটি ভাঙেন। রুতুরাজ ২৭ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৩২ রান করে লং অফে শিবম মাভির ক্যাচ হন। ১৬ ম্যাচে ৬৩৫ রানে এই আইপিএলে শীর্ষ ব্যাটসম্যানের পুরস্কার অরেঞ্জ ক্যাপ পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে যান তিনি। তাকে টপকে যাওয়ার পথে ছিলেন সতীর্থ ডু প্লেসি। কিন্তু ২ রানের জন্য পারেননি।

সাকিব তৃতীয় ওভারে আরো বেশি রান দেন। ডু প্লেসি ও উথাপ্পা একটি করে ছয় মেরে ১৫ রান তোলেন। ১১তম ওভারে ফার্গুসনকে দুটি চার ও একটি ছক্কা মেরে ফিফটি করেন ডু প্লেসি।

অন্য প্রান্তে ঝড় তুলছিলেন উথাপ্পাও। ১৪তম ওভারে নারিনকে তৃতীয় ছক্কা মারার পরের বলে এলবিডাব্লিউ হন তিনি। ১৫ বলে ৩ ছয়ে সাজানো ছিল তার ৩১ রানের ইনিংস। ভাঙে ৩২ বলে ৬৩ রানের জুটি। নতুন ব্যাটসম্যান মঈন আলীও ছিলেন বিস্ফোরক। ইংলিশ ব্যাটসম্যান ২০ বলে ২ চার ও ৩ ছয়ে ৩৭ রানে অপরাজিত ছিলেন। ডু প্লেসি থেমেছেন শেষ বলে, ৫৯ বলে ৭ চার ও ৩ ছয়ে ৮৬ রানে আউট হন ভেঙ্কটেশ আইয়ারের ক্যাচ হয়ে। উইকেটটি নেন মাভি। ৬৩৩ রানে এই আসর শেষ করলেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৯২ রান সংগ্রহ করে চেন্নাই সুপার কিংস।

তৃতীয় শিরোপা জয়ের আশায় ১৯৩ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দুই ওপেনার দেখে শুনে খেলতে থাকেন। ১০.৪ ওভারে ৯১ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তুলেন শুভমান গিল এবং ভেঙ্কস আইয়ার। ৩২ বলে ৫০ রান করে আউট হন আইয়ার। ৪৩ বলে ৫১ রান করে সাজঘরে ফিরেন গিল। কলকাতার অন্য ব্যাটসম্যানরা নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। নারিন (২) কার্তিক (৯) ও মরগান (৪) সহ কলকাতার ছয় ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছতে পারেনি। সাকিব আল হাসান ১ বল মোকাবিলা করে শূণ্য রানে আউট হন। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রান তুলতে সক্ষম হয় কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২৭ রানে জয়ের সুবাদে চতুর্থ শিরোপা ঘরে তুলে নেয় ধানির চেন্নাই সুপার কিংস।

আইপিএলের ফাইনাল দেখতে শুক্রবার মাঠে ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। ম্যাচ চলাকালীন টিভি ক্যামেরায় দেখা যায় তাকে। বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী ও সেক্রেটারি জয় শাহর পাশে বসেছিলেন তিনি।

মূলত এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সভায় যোগ দিতে দুবাইয়ে গিয়েছেন পাপন। সেখানেই হচ্ছে আইপিএল ফাইনাল। রবিবার ওমানে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে টাইগাররা। ওই ম্যাচেও অনুপ্রেরণা দিতে মাঠে থাকার কথা রয়েছে তার।
আইপিএলে গত ১৩ আসরে সবচেয়ে বেশি ফাইনালে খেলার ও শিরোপা জয়ের অভিজ্ঞতা রয়েছে ধোনিদের। শুক্রবার নবম ফাইনালে খেলা চেন্নাই আগের আট ফাইনালের ম্যাচে হেরেছিল পাঁচটিতে। আর ২০১০ সালে মুম্বাই,২০১১ সালে ব্যাঙ্গালুরু ও ২০১৮ সালে হায়দারাবাদের বিপক্ষে জিতে ছিল। এবার আইপিএলে ১৪তম আসরে চতুথ শিরোপা জয় করল ধোনি বাহিনী। আর গত ১৪ আসরে তিনবার ফাইনাল খেলে দুবারই শিরোপা জিতেছে কলকাতা। তারা ২০১২ সালে চেন্নাই ও ২০১৪ সালে পাঞ্জাবের বিপক্ষে শিরোপার স্বাদ নিয়েছে।

আর- এস / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়