১৭৮ অনিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল বন্ধ করল বিটিআরসি

আগের সংবাদ

সম্ভাব্যময় পর্যটন নগরী পঞ্চগড়

পরের সংবাদ

ফেনীর বিমানবন্দর রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি

মাজহারুল ইসলাম শামীম

শিক্ষার্থী, ফেনী সরকারি কলেজ

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৪, ২০২১ , ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০২১ , ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ

ঢাকা-চট্টগ্রামের যোগাযোগের মাঝখানে গুরুত্বপূর্ণ শহর হলো ফেনী। এই ফেনী জেলায় নির্মিত হয়েছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় একটি বিমানবন্দর। ১৯৩৮ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে জাপানের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বিমানবন্দরটি নির্মাণ করে তৎকালীন ব্রিটিশ সরকার। ফেনী শহরের উত্তরাংশের সুলতানপুর, বারাহিপুর, মজলিশপুর, বিরিঞ্চি, ধর্মপুর ও দেবীপুর এলাকার প্রায় সাড়ে ৩০০ একর ভূমির ওপর এটি গড়ে তোলা হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এটি ছিল এশিয়ার বৃহত্তম বিমানবন্দর। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় বিমানবন্দরের চারদিকে অনেক হ্যাঙ্গার তৈরি করা হয় যুদ্ধবিমান লুকিয়ে রাখার জন্য। বিমানবন্দর এলাকায় ২৭টি হ্যাঙ্গার রয়েছে। কিন্তু আজ এই বিশাল বিমানবন্দর রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি এই বিমানবন্দরে বেশকিছু পুরনো যন্ত্রপাতি যা ছিল সব চুরি হয়ে গেছে। এর মধ্যে ৪৯ একর জমির ওপর ২০০৬ সালে গড়ে ওঠে দেশের দ্বিতীয় গার্লস ক্যাডেট কলেজ।
আর বাকি অংশটুকু আস্তে আস্তে আশপাশের ভূমিদস্যুরা এখানে বাড়িঘর নির্মাণ, রাইচ মিল, কৃষি আবাদ ও খামার গড়ে তোলে শত শত একর জমি জবরদখল করে রাখে। বিমানবন্দরের রানওয়ে ও সড়কের ইট লুটপাট করে নিয়ে যায়। এখনো দখলদারদের দৌরাত্ম্যের অবসান হয়নি। তাই বন্দরটি রক্ষা করা এখন সময়ের দাবি।

মাজহারুল ইসলাম শামীম : শিক্ষার্থী, ফেনী সরকারি কলেজ।
[email protected]

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়