নাসিরনগরে মন্দির হামলায় ২ অভিযুক্তের মনোনয়ন বাতিল

আগের সংবাদ

মাথায় ৭৩৫ ডিম নিয়ে বিশ্বরেকর্ড

পরের সংবাদ

তাইওয়ানকে ‘পুনরায় একত্রীকরণে’ বল প্রয়োগ করতে হবে না: পুতিন

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৪, ২০২১ , ৯:০০ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০২১ , ৯:০০ অপরাহ্ণ

স্বশাসিত তাইওয়ানকে ‘পুনরায় একত্রীকরণের’ জন্য বেইজিং কর্তৃপক্ষকে বল প্রয়োগ না করলেও চলবে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) মস্কোতে জ্বালানী সপ্তাহ সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির চীন ও তাইওয়ানের মধ্যে সামরিক সংঘাতের সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়ে এ কথা বলেন। খবর সিএনবিসির

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, তিনি মনে করছেন তাইওয়ানের ওপর চীনের বল প্রয়োগের কোনো প্রয়োজন নেই। চীন শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ। ক্রয় সমতার ক্ষেত্রে চীন এখন যুক্তরাষ্ট্রের তুলনায় বিশ্বের এক নম্বর অর্থনীতির দেশ। এই অর্থনৈতিক সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে, চীন তার জাতীয় উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে সক্ষম। আমি কোনও ধরনের হুমকি দেখছি না।

অক্টোবরের শুরুর দিকে তাইওয়ানের সঙ্গে চীনের শান্তিপূর্ণ ‘পুনরায় একত্রীকরণের’ অঙ্গীকার করেন প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। একই সঙ্গে এ ব্যাপারে বেইজিং যে কোনও বিদেশি শক্তির হস্তক্ষেপের কঠোর বিরোধিতা করে বলে দৃঢ়ভাবে জানান তিনি।

গত রোববার (১০ অক্টোবর) শি জিনপিংয়ের এক মন্তব্যের জবাবে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েন বলেন, তার সরকার সামরিক সক্ষমতা বৃদ্ধিতে বিনিয়োগ করবে; যাতে তাদের আত্মরক্ষার জন্য দৃঢ় সংকল্প দেখানো যায়।

অক্টোবরের প্রথম চারদিনেই চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) তাইওয়ানের আকাশসীমায় প্রায় ১৫০টি যুদ্ধবিমানের অনুপ্রবেশ ঘটিয়েছে। চীনের গণমাধ্যমের খবরে যুদ্ধবিমানের এই অনুপ্রবেশকে শক্তি প্রদর্শন বলে উল্লেখ করা হয়। কিন্তু বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার চীনের এ ধরনের কার্যক্রমকে ‘ভয়ভীতি প্রদর্শন ও আগ্রাসন’ হিসেবে উল্লেখ করেছে এবং নিন্দা জানিয়েছে।

চীনা বিমানের অনুপ্রবেশের এই ঘটনায় বেইজিং কতৃপক্ষ ও তাইওয়ানের মধ্যে চরম উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। প্রায় দুই কোটি ৪০ লাখ মানুষের তাইওয়ানকে নিজেদের একটি প্রদেশ হিসেবে মনে করে চীন। সাত দশকেরও বেশি সময় ধরে তাইওয়ান স্বশাসনে চললেও প্রয়োজনে বলপ্রয়োগ করে তা দখলে নেওয়ার অঙ্গীকার করেছে চীন।

সাই ইং-ওয়েন নেতৃত্বাধীন সরকারকে চীন বিচ্ছিন্নতাবাদী মনে করে। ১৯৪৯ সালে কমিউনিস্ট সরকার চীনের শাসন ক্ষমতা দখল করার পর তাইওয়ান মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। কিন্তু চীন বলছে, তাইওয়ানের স্বাধীনতা মানেই যুদ্ধ।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়