মুদি দোকানি থেকে আদম পাচারকারী, সহযোগীসহ গ্রেপ্তার ৮

আগের সংবাদ

অষ্টমীর দিনে মায়ের চরণে ভক্তদের পুষ্পাঞ্জলি

পরের সংবাদ

রাবির ‘বি’ ইউনিটের সংশোধনী ফল প্রকাশ, ২৩তম হলেন ২২০৫তম

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৩, ২০২১ , ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৩, ২০২১ , ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ‘বি’ ইউনিটের সংশোধিত ফল প্রকাশ হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) দুপুরে এ ফল প্রকাশ হলে শিক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বর ও মেধাক্রমের পরিবর্তন হয়।

এর আগে সোমবার ত্রুটিপূর্ণ ফল প্রকাশ করে আলোচনা-সমালোচনার জন্ম হয়। পরবর্তীতে সংশোধিত ফল প্রকাশের পরও সমালোচনা এড়াতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৬ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে তিনটি গ্রুপে (বি-১, বি-২, বি-৩) ৩১ হাজার ৫১৭ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। সোমবার রাতে প্রকাশিত ফলে দেখা যায়, বি-২ গ্রুপে প্রায় ১৬০০ শিক্ষার্থীকে অনুপস্থিত দেখানো হয়েছে। অথচ এদের মধ্যে অনেকেই পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। এর পরও অনুপস্থিত এবং আশানুরূপ ফল না আসায় এ নিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে সমালোচনা শুরু হয়। একইসঙ্গে অনেকেই ফল পুনর্মূল্যায়নের জন্য দাবি করেন। বিষয়টি টের পেয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ত্রুটিযুক্ত ফল মঙ্গলবার সকালে ওয়েবসাইট থেকে সরিয়ে নেয়। পরবর্তীতে সংশোধনী ফল প্রকাশ করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে দেখা যায়, অবাণিজ্য থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন ইমু সাহা নামে একজন ছাত্রী। প্রথম ফল প্রকাশের পর ৮০ দশমিক ৩০ নম্বর পেয়ে ২৩তম হন। পরে সংশোধিত ফলে তার প্রাপ্ত নম্বর দেখানো হয় ৪৯ দশমিক ৬০ এবং মেধাক্রম আসে ২ হাজার ২০৫।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রধান সমন্বয়ক অধ্যাপক জিন্নাত আরা বলেন, ট্যাকনিকাল সমস্যার কারণে ফলে ত্রুটি দেখা দিয়েছিল। পরে আমরা সেটি ঠিক করে ফল প্রকাশ করেছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক বাবুল ইসলাম বলেন, আমাদের একটু টেকনিক্যাল সমস্যা হয়েছিল। মূলত ফলের মাস্টার ফাইল থেকে স্ক্যানিং করে ফল প্রকাশের উপযোগী করা হয়। কিন্তু সেটি প্রসেস করতে গিয়ে এক্সএল শিটের একটি কলাম সম্ভবত গ্যাপ হয়ে যায়। ফলে রোল নম্বরগুলো এলোমেলো হয়।

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সুলতান-উল ইসলাম বলেন, বি ইউনিটের পরীক্ষার সম্পূর্ণ দায়-দায়িত্ব সেখানকার চিফ কো-অর্ডিনেটরকে দেওয়া হয়েছে। তাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলব। যদি কোনো অনিয়ম হয়ে থাকে তবে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

ডি-এফবি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়