এক ঘণ্টার জন্য ইউএনও হলেন ৯ম শ্রেণির সাদিয়া

আগের সংবাদ

প্রেস ক্লাবের মর্যাদা ক্ষুন্ন করেছে বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

পরের সংবাদ

বিএমইটি চালু করছে নাগরিক ঘণ্টা

প্রকাশিত: অক্টোবর ১১, ২০২১ , ৬:১৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০২১ , ৬:১৬ অপরাহ্ণ

বিদেশে শ্রমিক পাঠানো নিয়ে প্রায়ই মিলছে হয়রানির অভিযোগ। অনেক অভিযোগের প্রতিকার মিলছে না। এ অবস্থায় নাগরিক দুর্ভোগ কমাতে জনগনের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোতে (বিএমইটি) চালু হতে যাচ্ছে সিটিজেন বেল (নাগরিক ঘণ্টা)।

দেশের কোনো সরকারি প্রতিষ্ঠানে সরাসরি নাগরিকদের অভিযোগ জানতে এই ঘণ্টা বসানো হয়েছে। মো. শহীদুল আলম মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর এ উদ্যোগ গ্রহণ করেন। পরীক্ষামূলকভাবে চলছে এ কাযক্রম। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কনিষ্টপুত্র শেখ রাসেলের জন্মদিনে ১৮ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে এ সেবা চালু হবে। এর মাধ্যমে সেবা প্রার্থীদের ভোগান্তি অনেকাংশে হ্রাস পাবে বলে মনে করছেন বিএমইট কর্মকর্তারা।

এ প্রসঙ্গে মো. শহীদুল আলম সোমবার (১১ অক্টোবর) বিকেলে এ প্রতিবেদককে জানান, তার কক্ষের দরজার বাইরে থেকে যে কেউ এই ঘণ্টার বাটন চাপলে তিনি মনিটরে সরাসরি তাকে দেখে কথা বলতে পারবেন। অপেক্ষমান ব্যক্তি সরাসরি মহাপরিচালকের সাথে সাক্ষাত করতে চাইলে ভেতর থেকে রিমোট চেপে দরজার লক খুলে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, এই ঘণ্টা বাজিয়ে যে কেউ তাকে অতি জরুরি বিষয়ে অবগত করতে পারবেন। বিএমইটি-এ সেবা বঞ্চিত হয়ে নালিশ জানালে তাৎক্ষনিক মিলবে প্রতিকার। কোনো রিক্রটিং এজেন্সীর বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলেও জানানো যাবে এই ঘণ্টা বাজিয়ে। শহীদুল আলম দাবি করেন, কারো অনুকরণে নয়, নিজের তাগিদ থেকেই তিনি এই সেবা চালু করেছেন। কার্যকরী সেবার মাধ্যমে জনগনের ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করাই লক্ষ্য বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, প্রশাসনিক সেবাপ্রত্যাশী জনগণের ভোগান্তি ও হয়রানি রোধে বরিশাল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে চালু হয়েছিল সিটিজেন বেল (ঘণ্টা)। ২০১৩ সালের ৮ ডিসেম্বর রবিবার বরিশাল মুক্ত দিবসে জেলা প্রশাসকের কক্ষের দরজার সামনে ফিতা কেটে এবং বেল টিপে নাগরিক সেবার দ্বার উন্মুক্ত করেন জেলা তৎকালীন জেলা প্রশাসক কবি মো. শহীদুল আলম। সেখানে তিনি ৩ বছর দ্বায়িত্ব পালনকালে কেউ সংক্ষুদ্ধ হলে, বিচার না পেলে, কাঙ্খিত সেবা না পেলে, কোনো কর্মকর্তা অসহযোগীতা করলে ওই ঘন্টা বাজিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে প্রতিকার চাওয়া এবং পাওয়া যেত। অবশ্য তার বিদায়ের পরই সরিয়ে ফেলা হয় ওই ঘণ্টা!

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়