ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের ফেরাতে হবে

আগের সংবাদ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্রুত দপ্তরি নিয়োগ দেয়া হোক

পরের সংবাদ

দাখিল মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত করা প্রয়োজন

প্রকাশিত: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ১:২৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ১:২৪ পূর্বাহ্ণ

শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড; কথাটা সত্য। তবে মেরুদণ্ডহীন এক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার চর মাহমুদপুর গ্রামে দাঁড়িয়ে আছে ২৪ বছর ধরে। যার নাম চর মাহমুদপুর দাখিল মাদ্রাসা।
১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এই মাদ্রাসা। সেই থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত বিনা বেতনে শিক্ষকরা আন্তরিকতার সঙ্গে পাঠদান দিয়ে যাচ্ছেন। হাজারো সূর্যসন্তান তৈরি করেছে এই প্রতিষ্ঠান। এই প্রতিষ্ঠান থেকে গ্র্যাজুয়েশন করে অনেকেই আজ দেশের নানা প্রান্তে চাকরিরত। অথচ শিক্ষকরা বেতনহীন মাসের পর মাস, বছরের পর বছর চলছে। বিষয়টি ভাবতেই অবাক লাগে। চরমাহমুদপুর গ্রামে ইসলামী শিক্ষার সমন্বয়ে আর কোনো প্রতিষ্ঠান নেই। এই প্রতিষ্ঠান যদি এমপিওভুক্ত আদৌ না হয়, ক্ষতির মুখে পড়ে যাবে এলাকার কোমলমতি ছাত্রছাত্রী। সেইসঙ্গে শিক্ষকরা এখন বেহাল অবস্থায় ভুগছেন। দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে বিনা বেতনে এভাবে পাঠদান আর কতদিন চলবে! দেশে নতুন করে এমপিওভুক্ত হবে অনেক প্রতিষ্ঠান। অক্টোবর মাসের ১০ তারিখ থেকে আবেদন সংগ্রহ করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এমন খবর শুনে হাজারো শিক্ষকের মুখে নতুনত্বের হাসি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতি করজোড়ে আবেদন করছি, আমাদের চর মাহমুদপুর গ্রামের এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে বাঁচান। প্রতিষ্ঠান বাঁচলে বাঁচবে ছাত্র-শিক্ষক, দেশ ও জাতি। শিক্ষার আলো ছড়িয়ে পড়–ক প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে- এই কামনা।

মিজানুর রহমান : চরমাহমুদপুর, মেলান্দহ্, জামালপুর।
[email protected]

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়