জীবনের পথচলায় সততা-নিষ্ঠা বড় উপাদান: শেখ তাপস

আগের সংবাদ

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী ২০ অক্টোবর

পরের সংবাদ

ডিআরইউ সেরা রিপোর্টারদের সম্মাননা দেবে ‘নগদ’

প্রকাশিত: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ৯:১২ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ৯:১২ অপরাহ্ণ

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সদস্যদের কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় অনুষ্ঠান বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড। এই পুরস্কারে এবার অংশীদার হয়েছে ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’। আর এর নামকরণ করা হয়েছে ‘নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড ২০২১’।

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) নগদ ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয়া হয়।

ঘোষণা অনুসারে গত ১ অক্টোবর ২০২০ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১-এর মধ্যে ডিআরইউ সদস্যদের প্রকাশিত ও প্রচারিত প্রতিবেদন অ্যাওয়ার্ড মনোনয়নের জন্য জমা দিতে হবে। রিপোর্ট জমা দেয়ার শেষ সময় ৮ অক্টোবর রাত আটটা পর্যন্ত।

চলতি বছর প্রিন্ট, অনলাইন, টেলিভিশিন ও রেডিও দুই ভাগে ২২টি ক্যাটাগরিতে সেরা রিপোর্টের জন্য পুরস্কার দেয়া হবে। দেশের ১০ জন জ্যেষ্ঠ সম্পাদক জমা পড়া রিপোর্টের মধ্য থেকে যাচাই-বাছাই করে সেরা রিপোর্ট নির্বাচন করবেন। পরে চলতি মাসের শেষ দিকে জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা ও পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ‘নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড ২০২১’ নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন ডিআরইউ-এর সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান। আর এই আয়োজনে ‘নগদ’-এর যুক্ত হওয়ার বিষয়টি আলোকপাত করেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট।

মসিউর রহমান জানান, ঘোষণা অনুসারে গত ১ অক্টোবর ২০২০ থেকে ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১-এর মধ্যে সংগঠনের সদস্যদের প্রকাশিত ও প্রচারিত প্রতিবেদন অ্যাওয়ার্ড মনোনয়নের জন্য জমা দিতে হবে। রিপোর্ট জমা দেয়ার শেষ সময় ৮ অক্টোবর রাত ৮টা পর্যন্ত।

সংবাদ সম্মেলনে ডিআরইউ-এর সভাপতি মুরসালিন নোমানী, ‘নগদ’-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড কমিটির আহ্বায়ক মাইনুল হাসান সোহেলসহ সংগঠনটির অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

‘নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড ২০২১’-এ সম্পৃক্ত হওয়া নিয়ে ‘নগদ’-এর নির্বাহী পরিচালক নিয়াজ মোর্শেদ বলেন, ‘ডিআরইউয়ের মতো সংগঠনের সঙ্গে মিলে এক বছরের সেরা রিপোর্ট নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় যুক্ত থাকা আমাদের জন্য একটি বড় সুযোগ। আমরা এই সুযোগ হাতছাড়া করতে চাইনি। আমরা সব সময়ই দায়িত্বশীল ও জনকল্যাণকর সাংবাদিকতার পক্ষে। ভবিষ্যতেও আমাদের এই অবস্থান থাকবে। আশা করি, আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা দেশের সাংবাদিকতার উন্নয়নে কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখবে।’

নানান উদ্ভাবন দিয়ে সাড়া জাগানো মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’ ইতোমধ্যে ডিআরইউ-এর সব ধরনের পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে কাজ করছে।

একই অনুষ্ঠানে ‘নগদ’ পেমেন্টের মাধ্যমে ডিআরইউ-এর বার্ষিক সদস্য চাঁদা পরিশোধ করে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ডিআরইউ-এর সভাপতি মুরসালিন নোমানী ও সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান।

২০১৯ সালের ২৬ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের পর মাত্র আড়াই বছরের মধ্যে ‘নগদ’ সাড়ে ৫ কোটি গ্রাহক পেয়েছে। সেই সঙ্গে দৈনিক গড় লেনদেন পৌঁছে গেছে ৭৫০ কোটি টাকায়।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়