ভারতের পর্যটন ভিসা চালু হচ্ছে ১৫ অক্টোবর

আগের সংবাদ

নির্বাচন কমিশন গঠনে নতুন আইন করা সম্ভব নয়: আইনমন্ত্রী

পরের সংবাদ

আন্দোলন করতে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে ঐক্য চান ফখরুল

প্রকাশিত: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ৭:৪৯ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৭, ২০২১ , ৭:৪৯ অপরাহ্ণ

সরকার হটাতে ‘গণআন্দোলন’ গড়তে সকল ‘দ্বিধা-দ্বন্দ্ব’ ভুলে জাতীয় ঐক্যের আহবান জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বৃহস্পতিবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় তিনি বলেন, দেশে এখন ‘সঙ্কট’ চলছে এবং এটা কেবল বিএনপির সঙ্কট নয়, ‘গোটা জাতির সঙ্কট।

এই সঙ্কট থেকে উদ্ধার পেতে হলে গোটা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে হবে। বিএনপি তো আছেই, সমস্ত দেশপ্রেমিক রাজনৈতিক শক্তিগুলো আছে, রাজনৈতিক দলগুলো আছে, ব্যক্তিরা আছেন, আমাদের সামাজিক সংগঠনগুলো আছে, পেশাজীবী সংগঠনগুলো আছে, সবাইকে আজকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

ঐক্যবদ্ধ হয়েই এই ভয়াবহ দানবীয় সরকারকে সরিয়ে একটা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে, জনগণের একটা পার্লামেন্ট তৈরি করতে হবে। আমি আপনাদের কাছে আহ্বান জানাতে চাই- আসুন আমরা আমাদের সকল দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ হই, ঐক্যের মধ্য দিয়েই আমরা দুর্বার একটা গণআন্দোলন সৃষ্টি করি।

আওয়ামী লীগের বর্তমান সরকারের সমালোচনায় মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে সুকৌশলে গণতন্ত্রের একটা মোড়ক লাগিয়ে এবং গণতন্ত্রের কথা বলে তারা (সরকার) আবার একই কায়দায় এদেশে সেই একদলীয় শাসন ব্যবস্থা বাকশাল এবং একটা তাবেদার রাষ্ট্র তারা প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

এ দেশের মানুষ কখনোই অন্যায় মেনে নেয়নি মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি খুব বিশ্বাস করি এবং আমি আশাবাদী যে কখনোই বাংলাদেশের মানুষকে এভাবে পরাজিত করা সম্ভব হবে না। এই সরকারকে অবশ্যই সরে যেতে হবে এবং জনগণের কাছে তাদেরকে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে।

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ নিহত হওয়ার দ্বিতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে ‘অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ এর উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

আবরার হত্যা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, আবরারের মৃত্যু কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। একটা সুদূর প্রসারী পরিকল্পনার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে একটা নতজানু রাষ্ট্র করবার ষড়যন্ত্র চলছে। সেই ষড়যন্ত্র থেকে আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। আসুন আমরা ঐক্যবদ্ধ হই, সেই সংগ্রামে আমরা যাই।

প্রবাসী সাংবাদিক কনক সরওয়ারের বোন নুসরাত শাহরিন রাকাকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, কনক সরওয়ার এই সরকারের অত্যাচারে নির্যাতিত হয়ে পালিয়ে জীবন রক্ষা করেছে এবং যুক্তরাষ্ট্রে আশ্রয় নিয়েছে। সেখান থেকে সে কিছু সত্য কথা তার চ্যানেলের মাধ্যমে প্রকাশ করে, প্রচার করে।

সেই কারণে এই ভয়াবহ প্রতিহিংসা পরায়ণ সরকার তার বোনের ওপর নির্যাতন-অত্যাচার করছে। কনকের বোন যিনি কোনোভাবে রাজনীতির সাথে জড়িত নন, তিনি একজন গৃহবধূ, তিন সন্তানে মা, আজকে তাকে তারা গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার শুধু নয়, তাকে এখন রিমান্ডে নিয়েছে।

গত কয়েক বছরে বিএনপির অসংখ্য নেতা-কর্মী ‘একই কায়দায় নির্যাতনের শিকার’ হয়েছে বলে অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল।

অ্যাসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশের সভাপতি রিয়াজুল ইসলাম রিজুর সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান চুন্নুর সঞ্চালনায় এ আলোচনা সভায় বিএনপির শওকত মাহমুদ, এজেডএম জাহিদ হোসেন, অধ্যক্ষ সেলিম ভূঁইয়া, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের এম আবদুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের কাদের গনি চৌধুরী, জাতীয় প্রেসক্লাবের ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য সৈয়দ আবদাল আহমেদ, বুয়েট শাখার ছাত্রদলের আহ্বায়ক আসিফ হোসেন রচি বক্তব্য দেন।

আয়োজক সংগঠনের মহাসচিব হাছিন আহমেদ, সাবেক সভাপতি মিয়া মুহাম্মদ কাইয়ুম, কৃষিবিদ অধ্যাপক গোলাম হাফিজ কেনেডীও উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানে।

আর- আরজেড / ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়