অপেক্ষা শেষের পথে, ডিসেম্বরেই শুরু হচ্ছে ‘হামি ২’

আগের সংবাদ

আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেয়া হচ্ছে

পরের সংবাদ

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ‘শক্তিভূতে সনাতনী’ শীর্ষক বিশেষ নৃত্যানুষ্ঠান

প্রকাশিত: অক্টোবর ৬, ২০২১ , ১১:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৬, ২০২১ , ১১:০৪ অপরাহ্ণ

দেবী দুর্গার দশমহাবিদ্যার দশ রুপের বর্ণনা নিয়ে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ‘শক্তিভূতে সনাতনী’ শীর্ষক বিশেষ নৃত্যানুষ্ঠান মঞ্চায়িত হয়েছে। দেবীর আগমনীবার্তা মহালয়ার আগে মঙ্গলবার রাত ৮ টায় উপজেলার জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে শ্রীমঙ্গল বিবেকানন্দ ছাত্র পরিষদের আয়োজনে নৃত্য পরিচালক শিক্ষিকা অনিতা দেব এর সঞ্চালনায় প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন অতিথিরা।

একই সঙ্গে অনুষ্ঠিত হয় আগমনী গান, করা হয় অভয়া’র মোড়ক উন্মোচন। পরে অনুষ্ঠিত হয় দেবী দুর্গার দশমহাবিদ্যার দশ রুপের বর্ণনা নিয়ে ‘শক্তিভূতে সনাতনী’ শীর্ষক এক ঘন্টার নৃত্যমালিকা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মিতালী দত্ত, মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. বিনেন্দু ভৌমিক, পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সহসভাপতি দ্বিজেন্দ্র লাল রায়, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব দেবাশীষ চৌধুরী, ছড়াকার ও অধ্যাপক অবিনাশ আচার্য, হিন্দু মহাজোট শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সহসভাপতি দেবাশীষ সেন গৌতম, পূজা উদযাপন পরিষদ শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সহসভাপতি অজয় দেব, সাধারণ সম্পাদক সুশীল শীল, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নির্বেন্দু নির্দোত তপু, বিশিষ্ট নাট্যশিল্পী দেবব্রত দত্ত হাবুল, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সুপর্ণা দেবনাথ, শিক্ষিকা আল্পনা রায় বেবি, সাংস্কৃতিক কর্মী কামরুল হাসান দোলন, অসিত দাশ ও এসকে দাশ সুমন।

দশমহাবিদ্যার দশ রুপের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয়ে ছিলেন, কালী রুপে অতশ্রী দাশ, তাঁরা রুপে ঈশিতা রায়, ষোড়ষী রুপে ঈশিতা বাহাদুর, ভৈরবী রুপে শতাব্দী রায়, ভূবনেশ্বরী রুপে বিদ্যা রায়, ছিন্নমস্তা রুপে সৃষ্টি মালাকার, ধূমাবতী রুপে প্লবতা ভৌমিক, বগলামুখী রুপে রাত্রি দাশ, মাতঙ্গী রুপে দেবযানি রায়, কমলা রুপে অনশ্রী দাশ, রম্ভাসুর রুপে অন্তু, রক্তবীজ রুপে নিলয় ও ভোলানাথ রুপে প্রাপ্ত প্রীতম, ষড়ানন রুপে নিধি, বিনায়ক রুপে রাজেশ্বরী। ভক্তির প্রতীক- ইমন, অভি, শ্রীজয়ি, তুষ্টি এবং ষড় কৃতিকা- মিষ্টু, রাই, অনুশ্রি, পিউ, পর্শী।

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. বিনেন্দু ভৌমিক বলেন, পুরাণ মতে, ব্রহ্মার বরে মহিষাসুর অমর হয়ে উঠেছিলেন। শুধুমাত্র কোনও নারীশক্তির কাছে তার পরাজয় নিশ্চিত ছিলো। অন্যদিকে অসুরদের অত্যাচারে যখন দেবতারা অতিষ্ঠ, তখন দেবতারা ত্রিশক্তি ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও মহেশ্বরের নিকট এই মহিষাসুরকে বধের প্রার্থনা করতে থাকেন আর এই ত্রিশক্তিই তখন দশভোজা নারীশক্তির সৃষ্টি করেন। তিনিই মহামায়ারূপী দেবী দুর্গা। দেবতাদের দেওয়া অস্ত্র দিয়ে মহিষাসুরকে বধ করেন দুর্গা।

এই নৃত্যানুষ্ঠানে আরো যারা কাজ করেছেন ‘মূল ভাবনা, প্রধান কোরিওগ্রাফি ও নির্দেশনায় ছিলেন প্রাপ্ত প্রীতম, নৃত্য সহযোগিতায় সুব্রত দাশ। মিউজিক এডিটিংয়ে শুভ্র রায়, ভয়েস হিমু নাহা ও সুশিপ্তা দাশ, আলোকসজ্জায় জুয়েল আহমেদ, ফাল্গুনী দেব, দেবস্মিতা দেবরায় এবং আলপনায় ছিলেন রিশান বিশ্বাস। এক ঘন্টা ব্যাপী এই অনুষ্ঠান চলাকালে দর্শক সমাগমে মুখরিত ছিল পুরো অডিটোরিয়াম।

রি-বিসি/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়