করোনার থাবা অটিস্টিক শিশুর বিকাশেও

আগের সংবাদ

উচ্ছ্বাসের ভঙ্গিমা নকল করায় বিপক্ষ ফুটবলারের প্রতি ক্ষিপ্ত রোনালদো

পরের সংবাদ

ইতালির নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী ৯ বাংলাদেশি প্রার্থী

প্রকাশিত: অক্টোবর ৩, ২০২১ , ৯:০১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০২১ , ৯:০১ পূর্বাহ্ণ

ইতালিতে রবিবার (৩ অক্টোবর) থেকে শুরু হচ্ছে সিটি নির্বাচন। প্রথম দিনে ভোটগ্রহণ চলবে সকাল সাতটা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত। দ্বিতীয় দিনে ভোটগ্রহণ চলবে সকাল সাতটা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত।

ইতালির এবারের সিটি নির্বাচনে অন্তত ৯ জন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে রোমে ৭ জন, মিলানে একজন এবং নাপলিতে একজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত প্রার্থীরা হলেন- রোম সিটি কাউন্সিলর ও ১নং ওয়ার্ড প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কেএম লোকমান হোসেন, রোম সিটি কাউন্সিলর ও ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী জুমানা মাহমুদ, ৫ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী লায়লা শাহ, ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মো. শহীদুল্লাহ, ১ ও ৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মো. আব্দুল ওয়াদুদ, ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী পরিতম সাহা, ফ্রাসকাতি কাউন্সিলর প্রার্থী পাপিয়া আক্তার ও মিলানো ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী বিবাস চন্দ্রকর।

১৯৯৩ সালে ইতালির স্থানীয় নির্বাচনে বাংলাদেশিদের অভিষেক হয়েছিল। তবে চলতি বছর প্রথমবারের মতো দেশটির নির্বাচনে এত বেশি বাংলাদেশি প্রার্থী একসঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ইতালির বাংলাদেশি কমিউনিটিতে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে।

ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. শামীম আহসান বলেন, আমি আনন্দিত যে রোম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে নারীসহ একাধিক বাংলাদেশি-ইতালিয়ান অংশ নিয়েছেন। মূলধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত ইতালিয়ানরা বেশি অংশ নিলে স্থানীয় ও জাতীয় রাজনীতিতে তাদের গুরুত্ব ও প্রভাব বাড়বে।

এ সময় তিনি সব প্রার্থীর সাফল্য কামনা করেন তিনি।

রোম সিটি কাউন্সিলর প্রার্থী ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি কে এম লোকমান হোসেন বলেন, প্রবাসীরা দীর্ঘদিন বিদেশে থেকে দেশের রাজনীতি চর্চা করছে। এই রাজনীতি করতে গিয়ে মারামারিও করছে, কিন্তু ফলাফল শূন্য। নিজেদের মধ্যে দূরত্ব বৃদ্ধি, শত্রু তৈরি করা ছাড়া অন্য কোনো অর্জন নেই।

তিনি বলেন, বিদেশের স্থানীয় রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও প্রবাসীদের নির্দেশ দিয়েছেন।

রোম সিটির আরেক কাউন্সিলর প্রার্থী জুমানা মাহমুদ বলেন, তার দল নির্বাচিত হলে রোমের ওয়ার্ডগুলোর ক্ষমতা বৃদ্ধি করা হবে, যাতে ছোট ছোট কাজের জন্য ওয়ার্ডগুলোকে সিটি করপোরেশনে যেতে না হয়। বিশেষ করে নিত্যদিনের আবর্জনা নিষ্কাশনের জন্য তারা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করবেন, যেনো আবর্জনা রিসাইকেল করে সার ও গ্যাস উৎপাদন করা যায়।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন রোমের সাবেক সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু বলেন, কোনো দেশের রাজধানীর সিটি নির্বাচনের প্রভাব জাতীয় রাজনীতিতে পড়ে। ইতালিও এ দিক থেকে ব্যতিক্রম নয়। তবে এবারের নির্বাচনে একক ভাবে কোনো দল বা মেয়র প্রার্থী নির্বাচিত হতে পারবে বলে মনে হয় না। কারণ মেয়র নির্বাচিত হতে হলে ৫১ শতাংশ ভোট পেতে হয়। যা কোনো দল বা প্রার্থী একক ভাবে পাওয়ার অবস্থানে নেই।

ইতালির সরকারি দল পিডির ব্রেশা শাখার নেতা কাওসার জামান বলেন, স্থানীয় রাজনীতিতে বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণ অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। কম্যুনিটির নেতৃত্বস্থানীয়দের উচিত বেশি বেশি স্থানীয় রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করা এবং যারা ভোটে দাঁড়িয়েছেন তাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়