জার্মানি থেকে দেশে এসেছে ৮ লাখ টিকা

আগের সংবাদ

৯ মাসে ৯৯ বাঘ মারা গেছে ভারতে

পরের সংবাদ

এখনও নিখোঁজ মিরপুরের ৩ ছাত্রী, জাপান যাওয়ার কথা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২, ২০২১ , ৭:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২, ২০২১ , ৮:০০ অপরাহ্ণ

বাসা থেকে টাকা, স্বর্ণালংকার ও শিা সনদ নিয়ে ‘পালিয়ে যাওয়া’ রাজধানীর মিরপুরের ৩ ছাত্রীর সন্ধান মেলেনি এখনো। প্রাথমিকভাবে পুলিশ নিশ্চিত হয়েছে তারা স্বইচ্ছায় ঘর ছেড়েছে। কিন্তু তাদের অবস্থান সম্পর্কে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে, এ ঘটনায় ৩ জনকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে মিলেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। ওই ৩ ছাত্রীর জাপানে যাওয়ার কথা ছিলো বলে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশকে জানিয়েছে তরিকুল নামে এক যুবক। কোন চক্রের মাধ্যমে তারা দেশ ছাড়তে চেয়েছিলো সেটি জানতে পারেনি পুলিশ। এমনকি তারা দেশ ত্যাগ করতে পেরেছে কিনা তাও নিশ্চিত নয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এদিকে, কলেজ পড়ুয়া ওই ৩ শিার্থীর খোঁজে পুলিশের সঙ্গে সরকারের একাধিক সংস্থা মাঠে নেমেছে। ভুক্তভোগী তিন শিার্থীর পরিবার অভিযোগ দেয়ার পর থানা পুলিশের সঙ্গে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি), পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) পৃথকভাবে তাদের অবস্থান নিশ্চিত করতে কাজ করছে। পল্লবী থানা পুলিশ সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

পল্লবী থানার ওসি পারভেজ ইসলাম ভোরের কাগজকে বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে ৩ জনকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তারা হলেন, তরিকুল ও তার ভাই রাকিবুল এবং অয়ন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তরিকুল জানিয়েছে, ১২-১৩ দিন আগে নিখোঁজ শিক্ষার্থীদের জাপানে যাওয়ার কথা শুনেছিলেন। কিন্তু কার মাধ্যমে কিভাবে তারা জাপানে যাবেন, সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেনি তারিকুল। অন্য দুজনের কাছ থেকে তেমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে, থানা পুলিশ ও অন্য কয়েকটি সংসস্থা মিলে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে ওই ছাত্রীদের উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে। এক প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, ওই ছাত্রীরা দেশ ছেড়েছেন, এমন কোনো তথ্য আমরা পাইনি।

নিখোঁজ হওয়ার তিনজনের মধ্যে নিসার মা মাহমুদা আক্তার পল্লবী থানায় দায়ের করা অভিযোগের বিষয়ে বলেন, আমি আমার মেয়েসহ তিনজনের সন্ধান চাই। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর শরনাপন্ন হয়েছে তারা এ বিষয়টি দেখভাল করছে। আমার সন্তান যেন মায়ের কাছে ফিরে আসতে পারে- সে আশায় রয়েছি। তিনি আরো বলেন, স্থানীয় জিনিয়া, তরিকুল ও রকিবুল নামের তিন জন আমার মেয়ে ও তার দুই বান্ধবীকে বিদেশ যাওয়ার প্রলোভন দেখায়। সেই প্রলোভনে পড়েই তারা বাসা থেকে বের হয়ে যায়। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় আমার মেয়ে বাসা থেকে ৬ লাখ টাকা, মেয়ের এক বান্ধবী তার বাসা থেকে আড়াই ভরি স্বর্ণ ও আরেক বান্ধবী ৭৫ হাজার টাকা নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। শুধুমাত্র জিনিয়া, রকিবুল ও তরিকুলের প্রলোভনে পড়েই মেয়েরা এ ধরনের পথে পা বাড়িয়েছে। অভিযোগে আসামি করা এই তিনজনের মধ্যে জিনিয়া শর্ট ভিডিও শেয়ারিং সাইট টিকটকে পরিচিত মুখ, আর তরিকুল ও রকিবুল সহোদর বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, নিখোঁজ ৩ ছাত্রী হলেন- মিরপুর গার্লস আইডিয়াল ল্যাবরেটরি ইনস্টিটিউটের শিার্থী কাজী দিলখুশ জান্নাত নিসা, পল্লবী ডিগ্রী কলেজের শিার্থী কানিজ ফাতেমা ও দুয়ারীপাড়া কলেজের শিার্থী স্নেহা আক্তার। বৃহস্পতিবার সকালে তারা কলেজ ড্রেস পরে নিজ নিজ বাসা থেকে বের হন। সেসময় তারা বাসা থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার, স্কুল সার্টিফিকেট ও মূল্যবান সামগ্রী নিয়ে যান।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়