১৪০ পুলিশ সদস্য পেলেন জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদক

আগের সংবাদ

আখাউড়া-লাকসাম ব্রড ও ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন উদ্বোধন শনিবার

পরের সংবাদ

লিগ ওয়ানে কে এই হাকিমি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ , ৯:৩৩ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ , ৯:৩৩ অপরাহ্ণ

ফরাসি লিগ ওয়ানে গতকাল আশরাফ হাকিমির জোড়া গোলে মেতজেকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে পিএসজি। দলের স্ট্রাইকাররা যখন ব্যর্থ হলেন, তখন রক্ষণভাগের খেলোয়াড় আশরাফ হাকিমি দুটি গোল করে দলকে এনে দেন পূর্ণ তিন পয়েন্ট। ইনজুরির কারণে গতকাল মেসি মাঠে নামেননি। তবে মাঠে ছিলেন নেইমার ও কিলিয়ান এমবাপ্পে। তারা দুজন বল জালে জড়াতে ব্যর্থ হলেও রক্ষণভাগের খেলোয়াড় হাকিমি বল জালে জড়াতে সমর্থ হয়েছেন।

আশরাফ হাকিমি কয়েক দিন আগেও আলোচনায় এসেছিলেন। তখন অবশ্য গোল করে নয়, মেসির বদলি খেলোয়াড় হিসেবে খেলতে নেমে। পিএসজি মেতজের বিপক্ষে খেলার আগে মাঠে নামে লিঁওর বিপক্ষে। সে ম্যাচটির ৭৫ মিনিটের সময় লিওনেল মেসিকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নামানো হয় হাকিমিকে। সেই ম্যাচটিতে মেসিকে উঠিয়ে হাকিমিকে মাঠে নামানোয় সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন কোচ মারিসিও পচেত্তিনো। ঠিক পরের ম্যাচেই দুটি গোল করে পিএসজির জয়ের নায়ক বনে গেলেন তিনি। মেসিকে উঠিয়ে হাকিমিকে মাঠে নামানোয় সমর্থকরা তার ওপর একটু নাখোশ হয়েছিলেন। এখন ক্লাবের সমর্থকদের কাছে সবচেয়ে প্রিয় খেলোয়াড় তিনি।

আশরাফ হাকিমি জাতীয় দলের হয়ে খেলেন আফ্রিকার দেশ মরক্কোর হয়ে। যদিও তার জন্ম হয় স্পেনের মাদ্রিদ শহরে। তার বাবা ও মা দুজনই মরক্কোর। কিন্তু তারা স্পেনে এসে বসবাস শুরু করেন। মরক্কো ছাড়াও তিনি স্পেনের নাগরিক। ইচ্ছে করলে স্পেনের হয়েও খেলতে পারতেন তিনি। তবে জাতীয় দল হিসেবে তিনি বেঁছে নেন মরক্কোকে। হাকিমি মূলত হলেন একজন রাইট ব্যাক। তাছাড়া রাইট উইঙ্গার হিসেবেও খেলতে পারেন তিনি। বিশ্বের অন্যতম সেরা ডিফেন্ডার হিসেবে ধরা হয় তাকে। আশরাফ হাকিমির ফুটবলের হাতেখড়িটা হয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদের তরুণ দলে। মাত্র আট বছর বয়সে রিয়ালের একাডেমিতে যোগ দেন তিনি।

স্পেনের নাগরিক হলেও আশরাফ হাকিমি জাতীয় দলে খেলেন মরক্কোর হয়ে

হাকিমি বিয়ে করেছেন স্প্যানিশ নায়িকা হিবা অবুককে। তার স্ত্রীর বাবা এবং মা হাকিমির বাবা মায়ের মতো স্পেনের নন। তার স্ত্রীর বাবা লিবিয়া আর মা তিউনিসিয়া থেকে স্পেনে এসেছিলেন। হাকিমির একটি ছোট ছেলেও রয়েছে।

রিয়াল মাদ্রিদের একাডেমিতে বড় হওয়া আশরাফ হাকিমির সিনিয়র পর্যায়ে অভিষেক হয়েছিল ২০১৭ সালে রিয়াল মাদ্রিদের হয়েই। ক্লাবটির হয়ে এক বছর খেলেছেন তিনি। তবে রিয়ালে এক বছর কাটালেও খেলার সুযোগ খুব কমই পেয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে এ এক বছরে তিনি মাত্র ৯টি ম্যাচ খেলেন। এরপর তাকে লোনে জার্মান ক্লাব বরুশিয়া ডর্টমুন্ডে পাঠিয়ে দেয় রিয়াল। সেখানে তিনি তিন বছর খেলেন। এই তিন বছরে তিনি মোট ৫৪টি ম্যাচ খেলেন। যেহেতু তিনি একজন রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ফলে গোল করার চেয়ে গোল আটকানোর কাজটিই বেশি করেছেন। ফলে তিন বছরে তিনি সবমিলিয়ে মাত্র সাতটি গোল করেন।

২০২০ সালে তাকে ফিরিয়ে নিয়ে আসে রিয়াল। তবে রিয়াল তাকে আর নিজেদের কাছে রাখেনি। তাকে বিক্রি করে দেয় ইতালিয়ান ক্লাব ইন্টার মিলানের কাছে। ইন্টারে তিনি এক বছরে খেলেন ৩৭টি ম্যাচ। মূলত ইতালিয়ান ক্লাবটিতেই নিজেকে মেলে ধরার সুযোগ পান আশরাফ হাকিমি। তাকে মৌসুমের বেশিরভাগ ম্যাচে মাঠে নামানো হয়। ইন্টারের হয়ে এক মৌসুমে ৩৭টি ম্যাচ খেলে সাতটি গোল করেন তিনি। তার খেলা দেখে ফরাসি জায়ান্টরা দলে নিয়ে আসে। পিএসজির হয়ে এখন পর্যন্ত সাতবার মাঠে নামেন তিনি। খেলোয়াড় হিসাবে সাতটি ম্যাচ খেলেই তিনবার বল জালে জড়িয়েছেন ।

আশরাফ হাকিমি মরক্কোর বয়সভিত্তিক দলে খেলেছেন। প্রথমে তিনি খেলেন অনূর্ধ্ব-১৭ দলের হয়ে। এরপর খেলেন অনূর্ধ্ব-২০ দলের হয়ে। ২০১৬ সালে মরক্কোর জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয় তার। নিজ দেশের হয়ে ৩৭টি ম্যাচ খেলে চারটি গোল করেছেন তিনি।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়