ভারত-বাংলাদেশ শিক্ষা বিনিময় আরো প্রসারিত হওয়া দরকার: শিক্ষা উপমন্ত্রী

আগের সংবাদ

জীবন বাঁচাতে পাকিস্তানে আফগান নারী ফুটবলাররা

পরের সংবাদ

এমএনএম ত্রিফলা রসায়ন জমতে সময় লাগবে: পচেত্তিনো

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১ , ৯:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১ , ৯:৫৭ অপরাহ্ণ

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ১-১ গোলের ড্র করেছে পিএসজি। ম্যাচটিতে পিএসজির হয়ে গোলটি করেন হেরেরা। অপরদিকে ক্লাব ব্রাগের হয়ে গোল করেন হানস ভানাকেন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গতকাল হাইভোল্টেজ ম্যাচে ইন্টার মিলানকে ১-০ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। এসি মিলানকে ৩-২ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল। আরেক ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি ৬-৩ গোলের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে আর বি লাইপজিগকে।

শক্তিশালী দল ও অনেক আশা ভরসা নিয়ে ক্লাব ব্রাগের মুখোমুখি হতে বেলজিয়াম যায় মেসিরা। ম্যাচটিতে প্রথমবারের মতো একসঙ্গে মাঠে নামেন তিন মহারথী লিওনেল মেসি, কিলিয়ান এমবাপ্পে ও নেইমার। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এটি ছিল মেসির ১৫০তম ম্যাচ। কিন্তু তাদের কেউ জাল খুঁজে পাননি। ম্যাচের ৫০ মিনিটের সময় ইনজুরির কারণে মাঠ ছাড়েন এমবাপ্পে। ফলে শেষ মূহুর্ত পর্যন্ত লড়াই করেন মেসি ও নেইমার। কিন্তু তারা সফল হননি। অবশ্য সফল হননি এ কথাটি বললেও ভুল হয়ে যায়। বলা যায় মেসির কঁপালটা খারাপ ছিল। কারণ তার করা একটি শট গোলবারে লেগে ফিরে আসে। এরপর ম্যাচের শেষের ২০ মিনিটে তার করা দারুণ কয়েকটি শট ক্লাব ব্রাগের গোলরক্ষক ফিরিয়ে দেন। তবে মেসি, নেইমার ও এমবাপ্পে পিএসজির হয়ে দুর্দান্ত খেলবেন এমনকি আশা করা হলেও নেইমার ও এমবাপ্পে নিজেদের সেরাটা খেলতে পারেননি। তবে এমবাপ্পের সাহায্যেই নিজেদের প্রথম গোলটি পায় পিএসজি।

পিএসজির সমর্থকদের প্রত্যাশা ছিল লিওনেল মেসি, নেইমার আর কিলিয়ান এমবাপ্পে একসঙ্গে মাঠে নামলে পাত্তা পাবে না প্রতিপক্ষ। ক্লাব ব্রার্গের বিপক্ষে বৃহস্পতিবার পিএসজির তারকাখচিত দলকে মনে হয়েছে বর্ণহীন- নির্বিষ। ৫১ মিনিটের মাথায় এমবাপ্পেকে তুলে নেন কোচ পচেত্তিনো। সে হিসাবে পিএসজির এই ‘ত্রিফলা’ আক্রমণভাগ একসঙ্গে খেলেছেন মাত্র ৫১ মিনিট। পয়েন্ট হারিয়ে ম্যাচ শেষে পিএসজি কোচ পচেত্তিনো বলেন,এই তিন তারকার একসঙ্গে ভালো খেলতে সময় দিতে হবে। অনেক পরিশ্রম করতে হবে। আমি তো আগেই ব্যাপারটা পরিষ্কার করে দিয়েছি আমাদের অনেক বড় বড় তারকা থাকলেও আমরা এখনো সত্যিকারের একটি দল হয়ে উঠতে পারিনি। এ জন্য আমাদের অনেক কাজ করতে হবে। অনেক পরিশ্রম করতে হবে।
দলে আরও অনেক বেশি ধারাবাহিকতা আর গতির প্রয়োজন বলে মনে করেন পচেত্তিনো, ‘আমাদের দলে গতি দরকার, দরকার খেলোয়াড়দের ধারাবাহিকতা। আমরা অনেক বেশি ভুল করছি। এসব করা যাবে না।

ম্যাচটিতে পিএসজির জাল লক্ষ করে মোট সাতবার আক্রমণ করে ক্লাব ব্রাগ। অপরদিকে বিশ্বের সেরা তিন খেলোয়াড় নিয়ে মাঠে নেমেও মাত্র চারবার প্রতিপক্ষের জাল লক্ষ করে শট করতে সমর্থ হয় পিএসজি। বলতে গেলে ক্লাব ব্রাগের মূহুমূহু আক্রমণে বিপর্যস্ত হয়ে পরে মেসিরাই। ২০১৯-২০ মৌসুমে ব্রাগকে গ্রূপ পর্বের দুটি ম্যাচে হারিয়েছিল পিএসজি। কিন্তু এবার আর তেমন কিছু হলোনা। ম্যাচটিতে আধিপত্য দেখিয়েছে ক্লাব ব্রাগ। তবে অনেক সুযোগ পেয়েছে পিএসজিও। কিন্তু সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারেনি তারা।

ম্যাচের মাত্র ১৫ মিনিটের সময় কিলিয়ান এমবাপ্পের করা দুর্দান্ত ক্রসে বল জালে জড়ান হেরেরা। এরপর পিএসজিই ফের দ্বিতীয় গোল তুলে নেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠে। কিন্তু তারা উল্টো গোল হজম করে ২৭ মিনিটের সময়। বেলজিয়ান ক্লাবটির অধিনায়ক ভানাকেনের গোলটিও হয় অনেকটা পিএসজির গোলের মতো। তবে পিএসজি মাত্র দুই মিনিট বাদেই ফের লিড নিতে পারত। এ সময় লিওনেল মেসি দুর্দান্ত এক শট করেন। কিন্তু তার করা শট বারে লেগে ফিরে আসে। এরপর প্রথমার্ধের পুরোটা সময় আধিপত্য দেখিয়েছে ক্লাব ব্রাগই।

ব্রাগের তিন খেলোয়াড়কে কাটিয়ে বল নিয়ে ছুটছেন পিএসজির লিওনেল মেসি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও নিজেদের এ আধিপত্য ধরে রাখে বেলজিয়ামের সেরা ক্লাবটি। ম্যাচের ৫০ মিনিটের সময় কিলিয়ান এমবাপ্পে ইনজুরিতে পরে মাঠ ছাড়েন। এরপর মূহু মূহু আক্রমনে তারা পিএসজিকে ব্যস্ত করে ফেলে। তবে অবশেষে ম্যাচের ৭০ মিনিটের সময় মেসি ফের একটি শট নেন। কিন্তু তার শট ঠেকিয়ে দেন ক্লাব ব্রাগের গোলরক্ষক। এর দুই মিনিট বাদে ফাউল করার দায়ে মেসিকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়। যদিও তিনি রেফারির এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করেন। ম্যাচের শেষ দিকে এসে পিএসজি আক্রমণ বাড়িয়ে দেয়। তবে ৮০ মিনিটের সময় দারুণ একটি সুযোগ পেয়ে তা হাতছাড়া করে ফেলেন মেসি।
অপরদিকে ইতালির সান সিরো স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে ইন্টারের মুখোমুখি হয়েছিল রিয়াল। ম্যাচের একদম শেষ সময়ে গিয়ে করা গোলে ১-০ ব্যবধানে জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে কার্লো আনচেলোত্তির শিষ্যরা।

নিজেদের ঘরের মাঠে শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে ইন্টার। পুরো ম্যাচে গোলের জন্য ১৮টি শট করে তারা, যার ৫টি ছিলো লক্ষে। কিন্তু গোল হয়নি একটিও। অন্যদিকে দুইটি শট লক্ষে রেখে একটিতে গোল আদায় করে নিয়েছে রিয়াল। সেই গোলটিও আসে ম্যাচের ৮৯ মিনিটে গিয়ে। সতীর্থের উঁচু করে বাড়ানো বল ডি-বক্সে পান রিয়ালের তরুণ তারকা কামাভিঙ্গা। তিনি আলতো ভলিতে তা ছেড়ে দেন রদ্রিগোর উদ্দেশ্যে। আরেক ভলিতে ম্যাচের জয়সূচক গোলটি করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

অপরদিকে নিজেদের পুরনো শত্রু এসি মিলানের বিপক্ষে ৩-২ গোলের রোমাঞ্চকর জয় তুলে নিয়েছে লিভারপুল। ম্যাচটিতে প্রথমে এগিয়ে গিয়েও পিছিয়ে যায় লিভারপুল। সেখান থেকে ফের এগিয়ে শেষ পর্যন্ত জয় তুলে নেয় রেডরা। ম্যাচটিতে লিভারপুলের মোহাম্মদ সালাহ পেনাল্টি মিস করেন। পরবর্তীতে অবশ্য স্বাভাবিকভাগে গোল করে সেই ক্ষতি পুষিয়ে দেন।
ম্যাচটির ৯ মিনিটের সময় আত্মঘাতী গোল থেকে লিড পায় লিভারপুল। এরপর ১৪ মিনিটের সময়ই হ্যান্ডবল থেকে ব্যবধান আরো বাড়ানো সুযোগ পায় জার্গেন ক্লপের শিষ্যরা। কিন্তু সেই সুযোগ হাতছাড়া করেন মোহাম্মদ সালাহ। এরপর ম্যাচের ৪২ ও ৪৪ মিনিটে যথাক্রমে আন্তে রেবিক ও ব্রাহিম দিয়াজ গোল করে উল্টো এসি মিলানকে এগিয়ে নেন। তবে পেনাল্টি মিস করা মোহাম্মদ সালাহ দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল করে দলকে সমতা এনে দেন। এরপর ৬৯ মিনিটের সময় জর্ডান হ্যান্ডারসন লিভারপুলের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন।

অপরদিকে আরেক ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি জার্মান ক্লাব আর বি লাইপজিগের উপর স্টিম রোলার চালিয়েছে। পেপ গার্দিওলার ম্যানসিটি ৬-৩ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে ক্লাবটিকে। ম্যাচটিতে লাইপজিগের হয়ে হ্যাটট্রিক করেন ক্রিস্টোফার কুনকু। অপরদিকে ম্যানসিটির হয়ে নাথান একি, রিয়াদ মাহরেজ, জ্যাক গ্রেলিশ, জোয়াও সেনসেলা ও গ্যাব্রিয়েল জিসুস গোল করেন। অপর গোলটি তারা পায় আত্মঘাতী গোল থেকে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়