কল্যাণপুর জলাশয় ঘিরে নির্মাণ হচ্ছে আরেক হাতিরঝিল

আগের সংবাদ

উলিপুরে সরকারি চাল কালো বাজারে বিক্রি, আটক ৩

পরের সংবাদ

রাইমার আবদারে ঘোড়া আনলেন তথাগত!

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১ , ৭:১২ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১ , ৯:১০ অপরাহ্ণ

রাইমা সেন আর চিত্রগ্রাহক তথাগত ঘোষের বন্ধুত্ব কারওর অজানা নয়। রাইমা-তথাগত ক্যামেরার মুখোমুখি হলেই সে ছবি যেন কথা বলে। কিন্তু রাইমা সুযোগ পেলেই তথাগতকে নাকে দড়ি দিয়েও ঘোরান, সে কথা জানেন?

টলিউডের অন্দরের খবর, ছবি তুলতে তুলতেই নাকি চিত্রগ্রাহকের কাছে একেক সময় একেক রকমের অদ্ভুত বায়না করেন রাইমা। সে সব না মেটালে তিনি নাকি শ্যুটেই ফেরেন না! খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

যেমন, এক বার ঘোড়া রোগে ধরেছিল সুচিত্রা সেনের বড় নাতনিকে। শ্যুটের ফাঁকে আলোচনায় তথাগত জানিয়েছিলেন, একটি ঘোড়া থাকলে বেশ হত। তা হলে শ্যুটিং আরও জীবন্ত হত। সে কথা রাইমার কানে যেতেই অভিনেত্রীর বায়না, ‘‘এখনই আমায় ঘোড়া এনে দিতে হবে। কালো ঘোড়া। ওকে নিয়ে শ্যুট করব।’’ তার পরেই হাত-পা গুটিয়ে চেয়ারে বসে পড়েছেন তিনি! নিজের জেদেই অনড়। শেষে কালো ঘোড়া এনে দেওয়ার পর তাকে নিয়ে শ্যুট শেষ করেন সেনসুন্দরী….। তথাগতের সেই সিরিজও যথেষ্ট চর্চিত।

রাইমা সেন

শুধু এই? এক বার শ্যুট করতে করতে রাইমার হঠাৎ আবদার, চায়ের দোকানে সবাই যেমন মাটির ভাঁড়ে চা খায় তিনিও তেমন করে চা খাবেন। তথাগত কিছুতেই বোঝাতে পারছেন না, রাইমাকে নিয়ে রাস্তায় বেরোলে সবাই তাঁকে ঘিরে ধরবে। কষ্টও হবে তার। তথাগত পাল্টা গ্রিন টি, লেবু চা, লিকার চা সমেত নানা ধরনের চায়ের ফিরিস্তিও দেন। কিন্তু কে শোনে কার কথা! রাইমার একটাই বায়না, তিনি আগে মাটির ভাঁড়ে চা খাবেন। তারপর শ্যুট করবেন। এবং যত ক্ষণ না চা খাচ্ছেন তত ক্ষণ শ্যুট করবেন না।

শেষে নায়িকার বায়না মেটাতে তথাগত নাকি তেঘড়িয়ার একটি চায়ের স্টলে আসেন। সেখানকার চায়ের দোকান তার পরিচিত। তুলনায় ফাঁকা সেই দোকানে গিয়ে রাইমা মনের সুখে ভাঁড়ে ঠোঁট ডুবিয়ে চুমুক দিয়ে গরম গরম চা খেয়ে তাজা হন। বায়না মিটতেই তিনি বাধ্য মেয়ের মতো ফের শ্যুটে হাজির!

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়