গুজরাটের নয়া মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র প্যাটেল

আগের সংবাদ

সিংগাইরে ধর্ষণ ও গর্ভপাতের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

পরের সংবাদ

পোশাক রফতানিতে ভিয়েতনামের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ , ৬:৩২ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ , ৬:৫৩ অপরাহ্ণ

তৈরি পোশাক রফতানিতে চলতি বছরের প্রথমার্ধে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেলে আবারও এগিয়েছে বাংলাদেশ। গত জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত সাত মাসে ভিয়েতনামের চেয়ে বাংলাদেশ ১৯৩ কোটি ৬৯ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি পোশাক রফতানি করেছে। গত বছর পোশাক রফতানিতে বাংলাদেশকে ছাড়িয়ে যায় ভিয়েতনাম। এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন তৈরি পোশাকশিল্পের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র পরিচালক মহিউদ্দিন রুবেল।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের সরকারি তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত সাত মাসে ১ হাজার ৮৭৯ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করেছে বাংলাদেশ। একই সময়ে ১ হাজার ৬৮৬ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করেছে ভিয়েতনাম। ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে জুলাইয়ের তুলনায় চলতি বছরের একই সময়ের বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের পোশাক রফতানি ৭ শতাংশ কমেছে।

গত জুলাইয়ে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা-ডব্লিউটিও’ ওয়ার্ল্ড ট্রেড স্ট্যাটিস্টিকস রিভিউ ২০২১ প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। এতে দেখা যায়, ২০২০ সালে ভিয়েতনাম ২ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করেছে। আর বাংলাদেশ রফতানি করেছে ২ হাজার ৮০০ কোটি ডলারের পোশাক। অথচ তার আগের বছর বাংলাদেশের রফতানি ছিল ৩ হাজার ৪০০ কোটি ডলার। তখন ভিয়েতনামের রফতানি ছিল ৩ হাজার ১০০ কোটি ডলার।

ডব্লিউটিও’র প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০ সালে চীন সবচেয়ে বেশি ১৪ হাজার ২০০ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করেছে। তার আগের বছরের চেয়ে দেশটির পোশাক রফতানি ৭ শতাংশ কমেছে। তারপরও চীন বিশ্বের মোট পোশাক রফতানির ৩১ দশমিক ৬ শতাংশ দখলে রেখেছে। একক দেশ হিসেবে ভিয়েতনাম দ্বিতীয় পোশাক রফতানিকারক হলেও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত (ইইউ) দেশগুলো সম্মিলিতভাবে এই জায়গা বহুদিন ধরেই দখল করে আছে। গত বছর ইইউ’র দেশগুলো নিজেদের অঞ্চলে ১২ হাজার ৫০০ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি করেছে। আর ইইউ’র বাইরে তাদের রফতানির পরিমাণ ৩ হাজার ৮০০ কোটি ডলার।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়