পোশাক রপ্তানি: ভিয়েতনামকে ফের টপকে গেল দেশ

আগের সংবাদ

হাসপাতালে আরও ৩১৯ জন ডেঙ্গু রোগী

পরের সংবাদ

ইউএস ওপেনের নতুন রানী রাদুকানু

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ , ৬:৫৭ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০২১ , ৬:৫৭ অপরাহ্ণ

ইউএস ওপেনের নারী এককে ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ব্রিটেনের এমা রাদুকানু। ১৮ বছরের এই ব্রিটিশ তরুণী গোটা টুর্নামেন্ট যেভাবে খেলেছেন, ফাইনালটাও খেলেছেন ঠিক সেভাবেই। রবিবার ৬-৪, ৬-৩ ব্যবধানে সরাসরি সেটে কানাডিয়ান লেইলাহ ফার্নান্দেজকে উড়িয়ে দিয়ে ইউএস ওপেনের মুকুটটা নিজের করে নিয়েছেন এই ব্রিটিশ টেনিসার। সেই সঙ্গে তিনি শারাপোভার গড়া এক রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, আরো অনেক রেকর্ডও গড়ে ফেলেছেন এমা রাদুকানু। এ কীর্তি গড়ার পর ব্রিটিশ এই তরুণী নিজ দেশে সম্মান পাবেন, সেটা অনুমিত। তাছাড়া গ্রান্ড স্ল্যামে ইংলিশ নারীদের রেকর্ড শুনলে এ বিষয়ে কোনো সংশয় থাকার কথা নয় ক্রীড়াপ্রেমীদের মনে। কারণ ১৯৭৭ সালে ভার্জিনিয়া ওয়েডের উইম্বলডন জয়ের পর থেকে কোনো গ্রান্ড স্ল্যামের এককে শিরোপা ওঠেনি কোনো ব্রিটিশ নারীর হাতে। এবার ৪৪ বছর পর সে অধরা শিরোপা জয়ের আক্ষেপ ঘুচালেন এমা রাদুকানু। তাই সম্মানটা তো তার পাওনাই।

এদিকে ইউএস ওপেনের শিরোপা জয়ের পর রাদুকানু বলেন, আমি সত্যিই কোনো বিশেষ চাপ অনুভব করিনি। আমার বয়সটা এখন মাত্র ১৮। কোনো কিছু নিয়ে বিশেষভাবে চিন্তা করিনি, যা হওয়ার হবে ভেবেই আমি প্রতিটি ম্যাচ খেলেছি। এ টুর্নামেন্টে আমার শিরোপা জয়ের মূল রহস্য হলো আমি গুরুত্বপূর্ণ পরিস্থিতিগুলোতে ভালো খেলতে পেরেছি। ভবিষ্যতেও ঠিক এভাবেই খেলব। এছাড়া পেশাদার টেনিসে মাত্র তিন মাস আগে অভিষেক হয়েছে রাদুকানুর। আর ক্যারিয়ার শুরু হতে না হতেই ইউএস ওপেন জয়।

৪৪ বছরের আক্ষেপ ঘুচালেন এমা রাদুকানু

তার শিরোপা জয়ের যাত্রাপথটা দুর্দান্তই। বাছাইপর্ব খেলে তবেই আসতে হয়েছে মূল মঞ্চে। সেখানে একটি সেটেও হারেননি তিনি। এমনকি মূল পর্বেও খেলতে হয়েছে বেলিন্ডা বেনচিচ, মারিয়া সাক্কারিদের মতো বাঘা বাঘা সব প্রতিপক্ষের সঙ্গে। কোয়ালিফাইয়ার থেকে শিরোপা জয়ের পথে ১০টি ম্যাচ খেলতে হয়েছে তাকে। তিনটি ম্যাচ ছিল কোয়ালিফাইয়ারে, বাকি সাতটি ম্যাচ মূল প্রতিযোগিতায়। বেশ কয়েকজন বড় নামের মুখোমুখি হয়েছেন তিনি।

দারুণ ব্যাপারটা হচ্ছে, যার সঙ্গেই খেলা হোক না কেন, এই ১০টি ম্যাচে একটি সেটও হারেননি রাদুকানু। সেই সঙ্গে গড়েছেন আরো কিছু তাক লাগান রেকর্ড। পুরুষ কিংবা নারী উভয় এককের ইতিহাসে বাছাইপর্ব পেরিয়ে এসে এবারই প্রথম কেউ গ্রান্ড স্ল্যাম জিতল। ২০০৪ সালে ১৭ বছরে সবচেয়ে কম বয়সি নারী খেলোয়াড় হিসেবে গ্রান্ড স্ল্যাম জিতেছিলেন রাশিয়ান গ্ল্যামার গার্ল মারিয়া শারাপোভা। তারপর এমা রাদুকানুই সবচেয়ে কম বয়সি হিসেবে গ্রান্ড স্ল্যাম জয়ের এই কীর্তি গড়লেন। শারাপোভা জিতেছিলেন সে বছরের উইম্বলডন।

এছাড়া ১৯৯৯ সালের পর এবারই প্রথম ইউএস ওপেনে মেয়েদের শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হয়েছিল দুই অবাছাই টেনিস খেলোয়াড়। ২২ বছর আগে এ টুর্নামেন্টের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল দুই অবাছাই নারী টেনিসার সেরেনা উইলিয়ামস ও মার্টিনা হিঙ্গিস। শেষ হাসিটা হেসেছিলেন সেরেনাই। এবার রাদুকানুর সঙ্গে কানাডার ১৯ বছর বয়সি ফার্নান্দেজ, দুই প্রতিদ্বন্দ্বীই অবাছাই খেলোয়াড় হিসেবে খেলেছেন ইউএস ওপেনের ফাইনালে।

তাছাড়া এই শিরোপা জয়ে ১৫০ নম্বর থেকে এক লাফে র‌্যাঙ্কিংয়ে ২৩ নম্বরে উঠে আসবেন রাদুকানু। সেই সঙ্গে হয়ে যাবেন ব্রিটেনের এক নম্বর টেনিসার। আর টুর্নামেন্টের প্রাইজমানি হিসেবে রাদুকানুর পকেটে ঢুকবে ১৮ লাখ পাউন্ড।

রি-এসএস/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়