রোমাঞ্চকর দ্বিতীয় ম্যাচেও জিতল বাংলাদেশ

আগের সংবাদ

এলপিজি সিলিন্ডার গ্যাসের বর্ধিত দাম প্রত্যাহারের দাবি সিপিবির

পরের সংবাদ

সংসদে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে এমপি হারুন

আইজিপি কি সরকারের অনুমতি নিয়ে বোট ক্লাবের দায়িত্বে

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৩, ২০২১ , ৭:৫২ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩, ২০২১ , ১০:২২ অপরাহ্ণ

চিত্রনায়িকা পরী মনিকে গ্রেপ্তার ও জামিনের ঘটনাও সমাজে বেশ নাড়া দিয়েছে উল্লেখ করে বিএনপির এমপি হারুনুর রশীদ বলেন, আলোচিত মোসারাত জাহান মুনিয়া হত্যাসহ নায়িকা পরী মনির ঘটনায় জড়িত অপরাধীদের সরকার আড়াল করতে চায়। চিত্রনায়িকা পরী মনির অভিযেগের পর আলোচনায় আসা ঢাকা বোট ক্লাব সরকারের অনুমোদন নিয়ে গড়ে ওঠেছে কি না সে বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করেছেন তিনি।

শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) সংসদে পয়েন্ট অব ওর্ডারে দাঁড়িয়ে মুনিয়া হত্যা মামলার মূল তদন্ত প্রতিবেদন নিয়ে উদ্বেগের কথা জানান হারুন। তিনি বলেন, গত কয়েক মাস আগে মুনিয়ার বোন নুসরাত জাহান আত্ম প্ররোচনায় একটি মামলা করেছেন। সেটি পুলিশ ফাইনাল রিপোর্ট দিয়েছে। কিন্তু গণমাধ্যমে দেখেছি সেদিন বসুন্ধরার এমডির সাথে ফোনালাপ। তাকে (বসুন্ধরা এমডি) নিয়ে ছবিও প্রকাশিত হয়েছে। সেটিও র‌্যাবকে তদন্তে দেওয়া হবে কি না? যদি না দেওয়া হয় আমি মনে করব এই সমস্ত অপরাধে সাথে যারা জড়িত সরকার তাদের চিহ্নিত করতে চায় না। আড়াল করতে চায়।

এমপি হারুন বলেন, বোট ক্লাব বিষয়ে পরী মনির ওই অভিযোগ নিয়ে আলোচনার রেশ না কাটতেই গত মাসে তার বনানীর বাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। থানায় দায়ের করা হয় মাদক আইনের মামলা। তিন দফা রিমান্ড শেষে দুদিন আগে তিনি জামিনে মুক্তি পেয়েছেন। চিত্রনায়িকা পরী মনিকে গ্রেপ্তার ও জামিনের ঘটনাও বেশ নাড়া দিয়েছে। জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর পরী মনি গণমাধ্যমে বলেছেন, কত নাটক করে তাকে ধরে নেওয়া হয়েছে। তাকে বলা হয়েছিল, শুধু অফিসে নেওয়া হবে আর কিছু জিজ্ঞাসা করা হবে। কিন্তু তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশের মহাপরিদর্শক সরকারের অনুমতি নিয়ে এই ক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন কি না, তাও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জানতে চান এমপি হারুনুর রশীদ।

হারুন বলেন, পরী মনির ঘটনা তদন্তের তদারক কর্মকর্তাকে ইতোমধ্যে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। পরী মনির বাসায় অভিযান চালিয়েছিল র‍্যাব। র‍্যাব নিজেরা এই ঘটনা তদন্ত করার দাবি জানিয়েছিল। কারণ এর পেছনে অনেক বড় শক্তি জড়িত। পরী মনিদের যারা ব্যবহার করছে তাদের চিহ্নিত করা দরকার।

পরী মনিকে গ্রেপ্তারের ঘটনা নিয়েও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতি দাবি করেন বিএনপি দলীয় এই আইনপ্রণেতা। তিনি বলেন, পরীমনির ঘটনায় হাই কোর্ট পর্যন্ত উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। আদালত বলেছে, পরী মনি একজন নারী, অসুস্থ, চিত্রজগতের কর্মী এ জন্য জামিন দেওয়া হয়েছে। এটা কোনো কথা হতে পারে? তাকে পরপর কেন তিনবার রিমান্ডে নেওয়া হলো, এটি নিয়ে হাইকোর্ট জজকোর্টের নথি তলব করেছে। এটা নিয়ে জনগণের মধ্যে ‘পারসেপশনটা’ ভিন্ন হচ্ছে।

রি-এনআরআর/ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়