পেরুতে বাস খাদে পড়ে নিহত ১৬

আগের সংবাদ

রাশিয়ার দিকে মুখ করে মূত্রত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

পরের সংবাদ

আফগানদের মৃত্যু ঝুঁকিতে রেখেই উদ্ধার অভিযান শেষ

প্রকাশিত: আগস্ট ২৮, ২০২১ , ৯:৩২ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ২৮, ২০২১ , ১১:০৩ অপরাহ্ণ

কাবুল বিমানবন্দরে হাজারো আফগান নাগরিক উদ্ধারের অপেক্ষায় আছে। কিন্তু বেশিরভাগ দেশ তাদের উদ্ধার অভিযান বন্ধ করে দিয়েছে। কাবুল বিমানবন্দরে নতুন করে জঙ্গি হামলা হতে পারে এমন আশংকার মধ্যে সেখান থেকে আফগানদের উদ্ধারের জরুরি অভিযান এখন শেষ হওয়ার পথে।

শনিবার (২৮ আগস্ট) বেসামরিক মানুষদের নিয়ে ব্রিটেনের সর্বশেষ ফ্লাইট কাবুল ছেড়েছে। ব্রিটিশ কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন, শনিবারেই ব্রিটেনের উদ্ধার অভিযানেরও সমাপ্তি ঘটতে চলেছে। খবর বিবিসির।

কাবুল থেকে ইতালির সর্বশেষ উদ্ধার ফ্লাইটও শনিবার রোমে পৌঁছেছে। এর আগে জার্মানি, ফ্রান্স, কানাডা এবং অস্ট্রেলিয়াও তাদের উদ্ধার অভিযান শেষ করার কথা ঘোষণা করে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাগরিকদের আবারও সতর্ক করে দিয়েছে তারা যেন কাবুল বিমানবন্দর এড়িয়ে চলে। তবে সেখানে তারা শেষ মূহূর্ত পর্যন্ত বেসামরিক নাগরিকদের উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রাখবে।

ব্রিটেনের সামরিক বাহিনীর প্রধান জানিয়েছেন, আফগানিস্তান থেকে বেসামরিক নাগরিকদের উদ্ধার অভিযান আজ শেষ হচ্ছে। জেনারেল স্যার নিক কার্টার জানিয়েছেন, কাবুল থেকে এখনো কিছু ফ্লাইট যুক্তরাজ্যের উদ্দেশ্যে ছাড়ছে, কিন্তু এগুলোর সংখ্যা খুবই কম। তিনি বলেন, সবাইকে যে শেষ পর্যন্ত উদ্ধার করা যায়নি, সেটা খুবই হৃদয়বিদারক। আফগানিস্তান থেকে ব্রিটেনে আসার উপযুক্ত বহু আফগানকে সেখানে রেখে আসতে হচ্ছে।

তালেবান এ মাসে কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার পর সেখান থেকে গণহারে উদ্ধার অভিযান শুরু করে বিভিন্ন দেশ। ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা গত ১৩ অগাস্ট হতে এ পর্যন্ত ১৪ হাজার ৫৪৩ জনকে উদ্ধার করেছে। উদ্ধার অভিযান যখন পুরোদমে চলছিল, তখন সেখানে প্রায় এক হাজার ব্রিটিশ সৈন্য ছিল। তবে এর মধ্যে কিছু সৈন্য আফগানিস্তান ত্যাগ করেছে।

কাবুল বিমানবন্দর ব্যবহারের বিরুদ্ধে মার্কিন দূতাবাস আবারও মার্কিন নাগরিকদের হুঁশিয়ার করে দিয়েছে। কয়েক ঘন্টা আগে দেয়া এই হুঁশিয়ারিতে আফগানিস্তানের মার্কিন দূতাবাস বলেছে, তারা যেন বিমানবন্দরে যাওয়া এড়িয়ে চলে এবং বিমানবন্দরের কোন গেট ব্যবহার না করে। যারা এরই মধ্যে বিমানবন্দরের বিভিন্ন প্রবেশপথে অপেক্ষা করছে, তাদের অবিলম্বে সেই স্থান ত্যাগ করতে বলা হয়েছে।

তালেবান দাবি করছে, তারা কাবুল বিমানবন্দরের কিছু অংশের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে, তবে যুক্তরাষ্ট্র এই দাবি অস্বীকার করছে।

কাবুল বিমানবন্দরে বৃহস্পতিবারের হামলার দায়িত্ব স্বীকার করেছিল আইএস-কে (ইসলামিক স্টেট অব খোরাসান প্রভিন্স)।

মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলে একটি ড্রোন হামলা চালিয়ে ইসলামিক স্টেট খোরাসান গ্রুপের এক নেতাকে হত্যা করেছে বলে জানিয়েছে। মার্কিন বাহিনী দাবি করছে, গত বৃহস্পতিবার কাবুল বিমানবন্দরে হামলার পেছনে এই ব্যক্তি অন্যতম পরিকল্পনাকারী ছিল তাদের বিশ্বাস।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়