কুড়িগ্রামে ধরলা নদী পানিতে টইটুম্বুর

আগের সংবাদ

গুলশানে আবাসন প্রতিষ্ঠানের আড়ালে মাদকের ব্যবসা, গ্রেপ্তার ৩

পরের সংবাদ

ফুটবলারদের ছাড়তে বললেন ইনফান্তিনো

প্রকাশিত: আগস্ট ২৬, ২০২১ , ১১:১৫ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ২৬, ২০২১ , ১১:১৫ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেশি হওয়ার কারণে লাতিন আমেরিকার দেশ ও আফ্রিকার বেশ কয়েকটি দেশকে লাল তালিকায় রেখেছে ব্রিটেন। এসব দেশ থেকে যারাই আসবেন, তাদের বাধ্যতামূলকভাবে ১০ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর বিশ্বকাপ বাছাইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা মুখোমুখি হবে। আর এ দুটি দেশের সব খেলোয়াড় খেলে থাকেন ইউরোপের সেরা লিগগুলোয়।

এখন সেপ্টেম্বরের শুরুতে বিশ^কাপ বাছাইয়ের ম্যাচ হবে। এজন্য ক্লাব পর্যায়ে খেলা ফুটবলারদের ডেকেছে তাদের দেশের ফুটবল ফেডারেশনগুলো। তবে লাল তালিকাভুক্ত যেসব দেশের খেলোয়াড়রা ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলে থাকেন, তাদের না যেতে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবগুলো। কারণ নিজ দেশের হয়ে খেলে আসার পর তাদের ১০ দিনের জন্য কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। তাই তারা প্রিমিয়ার লিগের বেশ কয়েকটি ম্যাচে খেলতে পারবেন না।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, প্রিমিয়ার লিগের ১৯টি ক্লাব ৬০ জন খেলোয়াড়কে লাল তালিকাভুক্ত ২৬টি দেশে পাঠাবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে। এখন যদি ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার মতো দেশগুলো তাদের সেরা খেলোয়াড়দের না পায়, তাহলে এ ম্যাচগুলো রঙ হারাবে। কারণ সবাই সেরা খেলোয়াড়দের মধ্যে লড়াই দেখার জন্য মুখিয়ে থাকেন।

ক্লাবগুলো এখন বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নিজেদের সেরা খেলোয়াড়দের না পাওয়ার শঙ্কায় পড়েছে বিভিন্ন দেশ। আর এ সমস্যার সমাধানে এগিয়ে এসেছেন ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনো। তিনি ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন যেন খেলোয়াড়দের জন্য বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকার বিষয়টি তিনি শিথিল করেন।

ইনফান্তিনো ক্লাবগুলোকে এটাও মনে করিয়ে দিয়েছেন তারা ফিফার সঙ্গে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ যখন কোন দেশ তাদের খেলোয়াড়দের নিজ দেশের হয়ে খেলার জন্য ডাকবে, তখন সেই খেলোয়াড়কে খেলার জন্য যেতে দিতে হবে।

প্রিমিয়ার লিগের মতো স্পেনের লা লিগাও জানিয়েছে, তারা তাদের লিগে খেলা খেলোয়াড়দের লাল তালিকাভুক্ত দেশগুলোয় যেতে দেবে না। জানা গেছে, এখন পর্যন্ত ১৩টি ক্লাবের ২৫ জন খেলোয়াড় আন্তর্জাতিক বিরতিতে দেশের হয়ে খেলার ডাক পেয়েছেন। ইকুয়েডর ও ভেনেজুয়েলা তাদের স্কোয়াড দিলে সংখ্যাটা আরো বাড়তে পারে। লা লিগার আপত্তি লাতিন আমেরিকায় খেলোয়াড়দের যাওয়া নিয়ে। কারণ সেখানে করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও লা লিগার এ শক্ত অবস্থানকে বিশ^জুড়ে ফুটবলের ‘অখণ্ডতা সংরক্ষণ এবং সুরক্ষা’বিরোধী বলেই মনে হচ্ছে ইনফান্তিনোর কাছে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন, খেলাটির বৃহত্তর স্বার্থ বিবেচনা করে লিগগুলো নমনীয় হবে।

এ ব্যাপারে ইনফান্তিনো এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, আমি প্রতিটি সদস্য জোট, লিগ এবং ক্লাবকে ফুটবলের প্রতি সম্মান দেখানোর আহ্বান জানাচ্ছি, যা বৈশি^ক খেলার জন্য সঠিক ও ন্যায্য হবে।

এদিকে ফিফা সভাপতি এখন বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করায় জটিলতা খুব দ্রুতই শেষ হবে বলে প্রত্যাশা সবার। আর এ সমস্যার সমাধান হলে মোহাম্মদ সালাহ, রিচার্লিসনের মতো খেলোয়াড়রা তাদের দেশের হয়ে খেলতে পারবেন।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়