আবারও বাংলাদেশ-কুয়েত সরাসরি ফ্লাইট চালু

আগের সংবাদ

একদিনে আরও ২২১ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

পরের সংবাদ

রবীন্দ্রনাথের গায়ের রঙ ও মাতৃ স্নেহ নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে বিজেপি মন্ত্রী

প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২১ , ৭:৪১ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ২০, ২০২১ , ৭:৪১ অপরাহ্ণ

ভারতের কেন্দ্রীয় শিক্ষা দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে নিয়ে একটি মন্তব্য করায় বিতর্ক বেঁধেছে। মন্ত্রী, ডা. সুভাষ সরকার রবীন্দ্রনাথের প্রতিষ্ঠিত বিশ্বভারতীর একটি অনুষ্ঠানে গিয়ে বলেন যে কবির গায়ের রঙ কালো ছিল বলে তার মা তাকে কোলে নিতেন না।

ঠাকুর পরিবারের সদস্য থেকে শুরু করে শান্তিনিকেতনের আশ্রমিক, প্রাক্তন ছাত্রছাত্রী বা সাহিত্যিক সকলেই বলছেন তার গায়ের রঙ কিছুটা চাপা ছিল ঠিকই, কিন্তু মাতৃস্নেহ থেকে বঞ্চিত ছিলেন, এরকম কোনও তথ্য পাওয়া যায় না।

এই প্রসঙ্গ একেবারেই অনভিপ্রেত বলে তারা মনে করছেন। তবে মন্ত্রীর পাশেই দাঁড়িয়েছে তার দল বিজেপি।

সম্প্রতি নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় নিযুক্ত হয়ে কেন্দ্র শিক্ষা মন্ত্রকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়েছেন ডা. সুভাষ সরকার। মন্ত্রীর একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

ওই ক্লিপে ডা. সরকারকে বলতে শোনা গেছে, “তার মা এবং তার বাড়ির অনেকে, রবীন্দ্রনাথ কালো বলে তাকে কোলে নিতেন না। সেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ভারতবর্ষের হয়ে বিশ্ববিজয় করেছেন।”

ওই ক্লিপে ডা. সরকার বিস্তারিতভাবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গায়ের রঙের প্রসঙ্গে বলেছেন। তিনি বুধবার শান্তিনিকেতনে বিশ্বভারতীর একটি অনুষ্ঠানে কথা বলছিলেন।

যদিও এটা স্পষ্ট নয় যে কেন তিনি রবীন্দ্রনাথের গায়ের রঙের প্রসঙ্গ এনেছিলেন, কারণ গোটা ভাষণটি শোনা যায় নি।

তবে ঠাকুর পরিবারের সদস্য এবং শান্তিনিকেতনের প্রবীণ আশ্রমিক সুপ্রিয় ঠাকুরের কথায়, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গায়ের রঙ একটু চাপা ছিল ঠিকই, কিন্তু সেই প্রসঙ্গে মন্তব্য করা একেবারেই অনভিপ্রেত।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বক্তব্যের আরেকটি দিক ছিল, যেখানে তিনি উল্লেখ করেছেন যে গায়ের রঙ কালো হওয়ার কারণে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মা তাকে কোলে নিতেন না – অর্থাৎ মাতৃস্নেহ থেকে তিনি বঞ্চিত ছিলেন।

রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই তথ্য সঠিক নয়। শান্তিনিকেতনের প্রাক্তন ছাত্র ও প্রবীণ সাংবাদিক – লেখক রজত রায় বলছেন এরকম কোনও তথ্য তিনি পাননি কোথাও।

সূত্র: বিবিসি

ডি-ইভূ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়