দেশি বিজ্ঞাপনে বিদেশি শিল্পীর অংশগ্রহণে ফি কার্যকর হচ্ছে

আগের সংবাদ

টেস্টে দুই ধাপ এগোলেন রুট

পরের সংবাদ

ই-অরেঞ্জের মালিক দম্পত্তিসহ ৫ জনের দেশ ত্যাগের নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত: আগস্ট ১৮, ২০২১ , ৮:৩১ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ১৮, ২০২১ , ৮:৩১ অপরাহ্ণ

রাজধানীর গুলশান থানায় দায়ের করা এক হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ই-অরেঞ্জের মালিক সোনিয়া মেহজাবিন ও তার স্বামী মাসুকুর রহমানসহ পাঁচ জনের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১৮ আগস্ট) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরীর আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। মামলার বাকি আসামি আমানউল্ল্যাহ, বিথী আক্তার ও কাউসার আহমেদকেও এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

এদিন প্রতারণা ও আত্মসাতের অভিযোগের মামলায় আসামিদের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। পরে বিচারক এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন। আদালতে গুলশান থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখা সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। এর আগে গত মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) ঢাকার অতিরিক্ত চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু বক্কর সিদ্দিকের আদালত আসামিদের জামিন আবেদন নাকচ করে দেন। এছাড়া মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেন।

মামলার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে অর্ডার করেও পণ্য না পাওয়ায় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে মো. তাহেরুল ইসলাম নামে এক ভুক্তভোগী বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি প্রতারণার মামলা দায়ের করেন। তবে তার সঙ্গে এজাহারে প্রতারণার শিকার আরও ৩৭ জনের স্বাক্ষর রয়েছে।

এজাহারে অভিযোগ করে বলা হয়, বাদী গত ২১ এপ্রিল পণ্য কেনার জন্য ই-অরেঞ্জকে অগ্রিম টাকা দেন। তবে ই-অরেঞ্জ নির্ধারিত তারিখে পণ্য সরবরাহ করেনি। টাকাও ফেরত দেয়নি। নিজেদের ফেসবুক পেজে বার বার নোটিশ দিয়ে সময় চাইলেও পণ্য কিংবা টাকা দেয়নি। অন্যদিকে প্রতিষ্ঠানটি যে বিভিন্ন আউটলেটের গিফট ভাউচার বিক্রি করেছিল সেগুলোর টাকা আটকে রাখায় আউটলেটগুলো ভাউচারের বিপরীতে পণ্য দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ করা হয়। এজাহারে আরও বলা হয়, এই করোনাকালে আমাদের কষ্টার্জিত অর্থ পাচ্ছি না। বরং প্রতিষ্ঠানটির মালিকানা পরিবর্তন নিয়ে নতুন নতুন তথ্য পাচ্ছি। আজ পর্যন্ত তারা পণ্য ডেলিভারি না দিয়ে ১ লাখ ভুক্তভোগীর প্রায় ১ হাজার ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাজধানীর গুলশান-১ সড়ক অবরোধ করেন ই-অরেঞ্জ থেকে পণ্য না পাওয়া অসংখ্য গ্রাহক। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যুক্ত থাকায় ওদিন রাতেই বিক্ষুব্ধ গ্রাহকরা বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজার সঙ্গে দেখা করতে মিরপুর-১২ তে তার বাসায় যান।

আর-আরএ/এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়